লালমনিরহাট বার্তা
আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী নিজেকে বাঁচাতে মরিয়া!
সুলতান হোসেন | ১৪ অক্টোবর, ২০২১ ৯:৪৬ AM
আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী নিজেকে বাঁচাতে মরিয়া!
লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানাকে গত (১০ অক্টোবর) কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দিয়েছেন লালমনিরহাট এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফ আলী খাঁন। তবে তিনি নিজেকে বাঁচানোর জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন।
এদিকে উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানা ৩ দিনের মধ্যে শোকজের জবাব দিয়েছেন বলে বিষয়টি এ প্রতিনিধিকে নিশ্চিত করেছেন এলজিইডি লালমনিরহাট নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফ আলী খাঁন।

এদিকে আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম নিয়ে "লালমনিরহাট বার্তার অনলাইনে "একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর টনক নড়ে এলজিইডি কর্তৃপক্ষের। সেই সাথে উপজেলা প্রকৌশলী নিজেকে বাঁচানোর জন্য স্থানীয় এক প্রভাবশালী নেতার কাছের লোককে দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার পায়তারা চালাচ্ছেন বলে একটি সুত্র দাবী করছেন।


এদিকে রবিবার (১০ অক্টোবর) লালমনিরহাট বার্তার অনলাইন ভার্সনে" কাজ শুরুর আগেই জামানতের টাকা উত্তোলনের অভিযোগ" শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। সংবাদ প্রকাশের পর পরই ওই দিনই লালমনিরহাট এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফ আলী খাঁন স্বাক্ষরিত এক পত্রে আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানাকে আগামী ৩ দিনের মধ্যে ৩টি বিদ্যালয়ের কাজ শুরু না করেও পারফরমেন্স সিকিউরিটি কেন ফেরত দেয়া হয়েছে তা লিখিতভাবে জানাতে বলা হয়েছে।

কারণ দর্শানোর (শোকজ) অনুলিপি প্রধান প্রকৌশলী এলজিইডির সদর দপ্তর ঢাকা-১২০৭ সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। (যার স্মারক নং-১৯৬১,তারিখ-১০/১০/২০২১ ইং)।

শোকজ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ/পুনঃনির্মাণ কাজ শুরু না করে এবং কাজের সময়সীমা অতিবাহিত হলেও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে "পারফরমেন্স সিকিউররিটি" ফেরত প্রদান করা হয়েছে। বিষয়টি নিম্নস্বাক্ষরকারী অবহিত হয়েছেন। পত্রে আরো উল্লেখ করা হয়েছে,এমন কর্মকান্ড ঠিকাচুক্তি সম্পুন্ন পরিপন্থি এবং আপনার (উপজেলা প্রকৌশলী) অদক্ষতা প্রমাণ করে। বিদ্যালয় ৩টির কাজ কেন শুরু না করে পারফরমেন্স সিকিউরিটি ফেরত দেয়া হয়েছে তার সুস্পষ্ট জবাব ৩ দিনের মধ্যে দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও গত সোমবার (১১ অক্টোবর) লালমনিরহাট বার্তার অনলাইনে "আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে কমিশন বাণিজ্য" শিরোনামেও একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। এসব প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর একের পর এক নানা অনিয়নের অভিযোগ প্রকাশ করছেন ঠিকাদাররা। তারা দ্রুত দুর্নীতিবাজ এ কর্মকর্তাকে বদলীসহ বিভাগীয় তদন্তের দাবী করেছেন।

এদিকে কাজ শুরুর আগেই "পারফরমেন্স সিকিউরিটি উত্তোলনের বিষয়টি গত মার্চ মাসে ঘটলেও আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে রেখেছিলেন। এ কর্মকর্তার প্রত্যক্ষ মদদে পারফরমেন্স সিকিউরিটির টাকা উত্তোলন করা হয়। সংবাদ প্রকাশের পর পারফরমেন্স সিকিউরিটির টাকা জমা ও ওই ৩টি বিদ্যালয়ের কাজ শুরু করার জন্য আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানা সংশ্লিষ্ট কাজের ঠিকাদার মিলন কনস্ট্রাকশনকে চিঠি দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কমলাবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনপাঠ বুড়িরদিঘী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, দুর্গাপুর ইউনিয়নের ছাবেরা খাতুন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দুরাকুটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩ টির কাজ শুরু না করে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে আদিতমারী উপজেলা প্রকৌশলী সোহেল রানা পারফর্মেন্স সিকিউরিটির ৪৬ লাখ টাকা উত্তোলনের সুযোগ করে দেন। বিষয়টি গত মার্চ মাসে হলেও সংবাদ প্রকাশের পর ঘটনাটি জানাজানি হলে পুরো জেলাজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়।

লালমনিরহাট এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফ আলী খাঁন বলেন, উপজেলা প্রকৌশলী এর দায়ভার কখনও এড়াতে পারেন না। শোকজের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, উপজেলা প্রকৌশলী শোকজের জবাব দিয়েছেন। তবে জবাব সন্তোষজনক না হলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এই বিভাগের আরও খবর