রংপুরের আট উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার পেল ১৩শ” ৭৩পরিবার
রংপুর অফিস: মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় উপহার পেয়েছেন রংপুর জেলার আট টি উপজেলায়  ১৩শত ৭৩টি অসহায় পরিবার। সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় রংপুরে এই গৃহহীন পরিবারের মুখে হাসি ফুটটেছে। সরকার থেকে তৈরী করে দেওয়া হবে তাদের  টিনসেড পাকা এসব ঘর।
রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান জানান, ২০২১ সালের মার্চ মাষের মধ্যেই এসব ঘর জমিসহ সুবিধাভোগীদের হাতে তুলে দেয়া হবে। তবে উপকারভোগীদের এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। মাঠ পর্যায়ে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন এসব ঘর করতে সবমিলিয়ে খরচ হচ্ছে একুশ কোটি ছেয়াত্তর লাখ তেরাশি হাজার টাকা। প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। ঘরে রয়েছে দুটি কক্ষ, একটি রান্না ঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা। এসব ঘর জমিসহ সুবিধাভোগীদের মধ্যে কাউনিয়া উপজেলায়১২০ পরিবার,রংপুর সদর৫০ পরিবার,গঙ্গাচড়ায় ১শ”,তারাগঞ্জে ১ শ”,পীরগাছায় ২২০,মিঠাপুকুরে ১৯৭,বদরগঞ্জে২৮৬,ও পীরগঞ্জে ১শ” পরিবারের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে দেয়া হচ্ছে।
কাউনিয়া নির্বাহী কর্মকর্তা উলফুত আরা বেগম  বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায়  উপজেলার ১শ”২০টি স্থানে   দুই কোটি বায়ান্ন লাখ ১২০টি গৃহহীন পরিবারের জন্যে দ্রুত গতিতে ঘর নির্মাণ চলছে। নির্ধারিত দিনের মধ্যে কাজ শেষ হস্থান্তর করা সম্ভব হবে।
তারাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন, জমি আছে কিন্তু বাড়ি করার মতো আর্থিক অবস্থানে ছিলেন না তাদের মধ্যে এই ঘরগুলো উপহার দেওয়া হয়েছে। এসকল পরিবারের মানুষগুলো দিন আনে দিন খাওয়া মানুষ। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া এসকল ঘর পেয়ে গৃহহীন পরিবারগুলো অনেক উপকৃত হবেন।
 রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান আরো জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসহায় পরিবারের জন্য উপহার স্বরূপ এ সকল আশ্রয় স্থল তৈরী করে দিচ্ছেন। এই কাজ বাস্তবায়নে উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তারা সকাল হতে গভীর রাত পর্যন্ত নির লস কাজ করে যাচ্ছেন। আগামী মার্চ মাষের মধ্যে শেষ হবে এসব বাড়ি পুরোপুরি নির্মাণের কাজ। এরপরই হস্তান্তর করা হবে সকল তৈরী এসব বাড়ি। তবে আগমী ২০ জানুয়ারী আট শ” প্রথম পর্যায়ে উনিশ টি বাড়ি হস্তান্তর করা হবে।


এক নজরে- এর অন্যান্য খবর