রংপুরের বদরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে নির্বাচনি প্রচার
রংপুর অফিস: রংপুরের বদরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন আগামী ২৮ ডিসেম্বর । নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রার্থীদের প্রচারনা এখন তুঙ্গে। প্রার্থীরা ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে দোয়া আর ভোট চাইছেন, দিয়ে যাচ্ছেন নানা প্রতি শ্রুতি। তবে প্রার্থীদের প্রচারনা প্রতক্ষ্য করে দেখাগেছে কোনও প্রার্থীই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। জন প্রতিনিধি হওয়ার আগেই তারা সরকারের নিয়ম ভঙ্গ করছেন।
বদরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামী আন্দোলন ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৪ জন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। জাতীয় পাটির কোনও প্রার্থী দেয়নি। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩০ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন প্রতিদ্বন্দিতা  করছেন। আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী টটুল, বিএনপি প্রার্থী ফিরোজ আহাম্মেদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুল হক এই তিনজনকে ব্যাপকভাবে গণসংযোগ করতে দেখা গেছে। তারা কাক ডাকা ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ভোট চাইছেন।
বদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি পরিতোষ চক্রবর্তী বলেছেন, তাদের ব্যাপক জনসমর্থন রয়েছে। গত পৌর নির্বাচনে ৬ জন কাউন্সিলর জয়ী হয়েছিল। এবার ইভিএমের মাধ্যমে ভোট হবে। ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের কোনও ধারণা নেই। ফলে নির্বাচন নিরপেক্ষ হওয়া নিয়ে তারা আশঙ্কা।
আওয়ামী লীগ প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী টুটুল বলেছেন, ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন। তিনি যেখানেই যাচ্ছেন ভোটাররা তাকে সাদরে গ্রহণ করছেন।
ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী মাসুদ রানা প্রচারে তেমন লক্ষ্য করা যায়নি।আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কাউকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রচার ও গণসংযোগ করতে দেখা যাচ্ছে না। প্রার্থীরা বেশিরভাগ সময় নিজেরা মাস্ক ব্যাবহার করছেন না। তাদের সঙ্গে থাকা সমর্থকরাও মাস্ক ব্যবহারসহ সামাজিক দূরত্ব মানছেন না। তবে তাদের দাবি,স্বাস্থ্যবিধি মেনেই প্রচার চালাচ্ছেন।
বদরগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠার ২০ বছর পরেও হয়নি কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন। এর আগে অনেক প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও বাস্তবায়ন হয়নি। সে কারণে দলের মার্কা দেখে নয়, এবার যোগ্য প্রার্থী দেখেই তারা ভোট দিতে চান ভোটার রা।  
রংপুর জেলা নির্বাচন অফিসার দেলোয়ার হোসেন বলেন, নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষভাবে করার লক্ষ্যে সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। উৎসব মুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এখন পর্যন্ত কোনও প্রার্থী কোন অভিযোগ করেনি।
সপ্তাহের বিশেষ প্রতিবেদন- এর অন্যান্য খবর