হাতীবান্ধায় অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন সালেহা
স্টাফ রিপোর্টার, হাতীবান্ধা: লালমনিহাটের হাতীবান্ধায় ট্রাকের ধাক্কায় আহত স্বামীর চিকিৎসার অর্থ যোগাতে স্বামীকে ভ্যানে নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন স্ত্রী সালেহা বেগম। সময় মত অপারেশন করা না হলে পা হারানোর শংঙ্কায় দিন পার করছেন সালেহা বেগম।
শনিবার দুপুরে উপজেলার বন্দর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায় এমন চিত্র। ভ্যানে শুয়ে আছেন অসুস্থ্য স্বামী। ভ্যান চালাচ্ছেন এক কিশোর। আর সালেহা বেগম দোকানে দোকানে গিয়ে হাত পাতেন টাকার জন্য। এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটি অসুস্থ হয়ে পড়ে থাকায় খেয়ে না খেয়ে কষ্টে দিনাপাত করছেন।
আহত ওই ব্যাক্তি উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের বাড়াই পাড়া গ্রামের মৃত ওসমান গনির ছেলে ষাটোর্দ্ধ নাজরুল ইসলাম। পেশায় রাজ মিস্ত্রীর লেবার। তিন মেয়েকে নিয়ে অন্যের জমিতে বসবাস। দুুু মেয়েকে বিয়েও দিয়েছেন। ছেলে রবিউল স্ত্রী সন্তান নিয়ে ঢাকায় থাকেন। খোজ রাখেন না পরিবারের।
এ সময় অসুস্থ্য নজরুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, প্রায় দুই মাস আগে সকালে  বাড়ি থেকে বাই সাইকেল যোগে বের হন কাজের উদ্দেশ্যে। পথিমধ্যে উপজেলার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে পৌছালে লালমনিরহাট থেকে ছেড়ে আসা একটি দ্রুত গতির ট্রাক ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে তিনি ছিটকে পড়ে যান এবং ডান পায়ে আঘাত পেয়ে গুরুত্বর আহত হন।
 এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের দ্বায়িত্বরত চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে প্রেরন করেন।
তিনি আরও জানান, সেখানে দেড় মাস চিকিৎসার পর কোন উন্নতি না হলেও বাড়ি চলে আসেন। কারন ওনাদের যা টাকা ছিলো সব শেষ। এতে প্রায় ৬০ হাজার টাকা খরচ হয়ে গেছে। ফলে সর্ব হারা ওই পরিবার দিশেহারা হয়ে খেয়ে না খেয়ে দিনাপাত করছেন।
আহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সালেহা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, বাড়িতে ছোট ছোট তিনটা মেয়ে আছে। তার উপর প্রতিদিন ৩০০ টাকার ঔষুধ লাগে। স্বামীও অসুস্থ কোন কাজ করতে পারে না। এখন ঔষুধের টাকার জন্য মানুষের কাছে হাত পাতা লাগে। তার পায়ে রড ঢুকানো আছে সেই রড বের করতে হবে ও অপারেশন করতে হবে। না হলে তিনি আর সুস্থ হবেন না। তাই সমাজের সচেতন বৃত্তবানদের কাছে আমার অনুরোধ তারা তাদের সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিক।
ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা দুলাল বলেন, ওনারা খুব গরীব মানুষ। যা ছিলো তা দিয়ে চিকিৎসা করেছেন। এমনকি ধার দেনাও করেছেন। কিন্ত সুস্থ না হওয়ায় আজ তারা রাস্তায়। বিষয়টি খুব দুঃখ জনক। অপারেশন করে রড বের করতে হবে। তাই যে টাকা লাগবে তা তাদের কাছে নেই। সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে স্বামীকে সুস্থ করে তুলতে পারবে এবং আবার আগের মত চলতে পারবে।
বিস্তারিত জানতে ও সহযোগীতা করতে যোগাযোগ করুন।
মোবাইল-০১৭০৪৫৪৯৪৫২।
ইতিবাচক লালমনি- এর অন্যান্য খবর