পিতা দ্বিতীয় বিয়ে করায় সন্তানের আত্মহত্যা
বার্তা রিপোর্ট: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় পিতা দ্বিতীয় বিয়ে করার অভিমানে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছে মেয়ে মরিয়ম বেগম (২৩) ।
শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথে মরিয়মের মৃত্যু হয়। নিহত মরিয়ম ওই এলাকার জহুরুল ইসলামের মেয়ে এবং পাশ^বর্তি হাতীবান্ধা উপজেলার ভোটমারী গ্রামের শামীম মিয়ার স্ত্রী। এর আগে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় পাটগ্রাম পৌরসভার বাস টার্মিনাল এলাকায় বাবা জহুরুলের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, প্রথম স্ত্রী থাকার পরেও দ্বিতীয় বিয়ে করেন জহুরুল ইসলাম। এ কারণে অভিমান করে প্রথম স্ত্রী বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যান। পরে বাবার দ্বিতীয় বিয়ের খবরে ক্ষুব্ধ হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাবার বাড়ি চলে আসেন মেয়ে মরিয়ম। এসময় দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে বাবা-মেয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে বাবার সঙ্গে অভিমান করে ঘরে ঢুকে নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় মরিয়ম। মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে বাবা জহুরুল ইসলামও দগ্ধ হন। পরে দগ্ধ বাবা-মেয়েকে উদ্ধার করে প্রতিবেশীরা প্রথমে পাটগ্রাম ও পরে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ (রকেম) হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় মরিয়মকে ঢামেক হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নেওয়ার পথে সকালের দিকে তার মৃত্যু হয়।  
পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত জানান, বাবা-মেয়ে দু’জনেই দগ্ধ হয়েছেন। মেয়েটির শরীরের অধিকাংশই পুড়ে গেছে। এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
জাতীয় বার্তা- এর অন্যান্য খবর