লালমনিরহাট বার্তা
মানুষের মুখ চেয়ে বোবা বাছুরের কান্না
পাটগ্রাম প্রতিনিধি : Apr 25, 2021, 1:43:32 AM সময়ে

মানুষের মুখ চেয়ে বোবা বাছুরের কান্না

পাটগ্রামে বিজিবি গোয়েন্দার বিরুদ্ধে অভিযোগ

দেড় মাস বয়সী ছোট্ট এঁড়ে বাছুরটির বেঁচে থাকার জন্য মা গাভীর দুধ-ই ভরসা কিন্তু আইনের অপব্যবহার করে গাভী থেকে বাছুরটিকে আলাদা করায় বাছুরটি না খেয়েই মরার পথে। খোদ আইনের অপপ্রয়োগের অভিযোগ উঠেছে এক বিজিবি গোয়েন্দা সদস্যের বিরুদ্ধে। কষ্টদায়ক এ ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম ইউনিয়নে। সরেজমিনে দেখা গেছে, মা গাভীর দুধ খেতে না পেয়ে ছোট্ট বাছুরটি বিভিন্ন জনের মুখের দিকে চেয়ে হাম্বা হাম্বা শব্দে বোবা চোখের পানি ছেড়ে কাঁদছে। অপরদিকে মা গাভীটি তার বাছুরের (সন্তান) জন্য অনবরত ডেকে চলেছে। ওই ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের কৃষক আব্দুল জব্বার পাটগ্রাম পৌরসভার সিরাজ মিয়ার নিকট একটি গাভী বাছুরসহ বিক্রি করেন। গত বুধবার (২১ এপ্রিল) ভারতীয় সড়ক ব্যবহার করে দহগ্রামের তিনবিঘা করিডোর গেট দিয়ে গাভী ও বাছুর পার করতে বাধ সাধে বিজিবি’র বর্ডার সিকিউরিটি ব্যুরো (বিএসবি) সদস্য ইব্রাহিম। তালিকা খাতায় গৃহপালিত গাভীটিকে নিয়ে যেতে দিলেও বাছুরটি পার করতে বাধা দেন তিনি। একপর্যায়ে ওই গোয়েন্দা সদস্য বাছুরটি অবৈধ বলে জব্দ করেন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কামাল হোসেন প্রধান জানান, আমি তাৎক্ষনিক ঘটনার প্রতিবাদ করে জানতে চাই গাভী বৈধ আর গাভীর বাছুরটি অবৈধ এটা কিভাবে সম্ভব ? কোন ধরণের আইনের অপব্যবহার। তিনিও ছোট্ট বাছুরটিকে ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ করলেও কাজ হয়নি। বিজিবি’র বর্ডার সিকিউরিটি ব্যুরো (বিএসবি) গোয়েন্দা সদস্য ইব্রাহিম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যার কাছে বাছুরটি পেয়েছি তার নিকট বৈধ কাগজ না থাকায় আটক করি। এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে গ্রামবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বাসিন্দা বলেন, স্বনামধন্য বর্ডারগার্ড (বিজিবি) বাহিনীর সুনাম ক্ষুন্ন করতে নানা ধরণের সমালোচনার সৃষ্টি ও আইনের অপব্যবহার করছে বিজিবির গোয়েন্দা সদস্য ইব্রাহিম। ক্রেতা সিরাজ মিয়া বলেন, গাভী বাছুরসহ ক্রয় করি। অন্যায়ভাবে বিজিবির সদস্য ইব্রাহিম ছোট্ট বাছুরটিকে আটক করে জব্দ করে। বৃহস্পতিবার নিলাম দেয়। নিলামে ১৫ হাজার টাকায় আবারও বাছুরটি কিনে নিই। বর্ডার সিকিউরিটি ব্যুরোর (বিএসবি) এফআইজি মেজর মোস্তাক আহমেদ বলেন, বাছুরটিকে মালিকবিহীন পাওয়া গেছে। কেউ বাছুরটি বৈধ বলে দাবি করেনি বলে জেনেছি। কেউ দাবি করলে ব্যাপারটি দেখা হত। রংপুর ৫১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মুহাম্মদ ইসহাক বলেন, বাছুরটিকে তো এ রকম করার কথা নয় । শুনেছি বাছুরটির দাবিদার ছিলনা। নিলামের দিনে এ বিষয়ে আপত্তি তোলা হয়। বিজিবির সদস্য ইব্রাহিম বাছুরটি আটক করে।