লালমনিরহাট বার্তা
রংপুরাঞ্চলের বৈষম্য ও দারিদ্রতা
স্টাফ রিপোর্টারঃ | ১৭ মে, ২০২২ ১:১৬ PM
রংপুরাঞ্চলের বৈষম্য ও দারিদ্রতা
মহান মুক্তিযুদ্ধের গৌরবদীপ্ত রংপুরাঞ্চল। ১৯৭১ সালে হানাদার পাকিস্তান বাহিনীকে পরাজিত, পরাভূত ও পদদলিত করতে ১১ সেক্টরের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ সংগঠিত হয়েছিল। তন্মধ্যে রংপুরাঞ্চলের চীরমুক্ত পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী হাশর উদ্দিন প্রধান উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ নং সেক্টর হেড-কোয়াটার প্রতিষ্ঠা করে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছিল।
মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে পাকিস্তান তাদের বেতার ও টেলিভিশনে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিভ্রান্তি কর প্রচারণা চালিয়ে ছিল। তাদের প্রচারণা ছিলো, পূর্ব পাকিস্তানের বিভিন্ন সীমান্তে কতিপয় দুষ্কৃতিকারী গোলযোগ সৃষ্টি করছে। তাদেরকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। অথচ,এসময় বীর মুক্তিযোদ্ধারা জীবন বাজি রেখে হানাদার পাকিস্তান বাহিনীর বিরুদ্ধে গেরিলা যুদ্ধ এবং সম্মুখ যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছিল।
এদিকে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে বৃটেনের শ্রমিক দলের খ্যাত নামা এমপি ডেনাল্ট চেজওয়ার্থ বুড়িমারী ৬ নং সেক্টরের হেড কোয়াটার, পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা সাব-সেক্টরের যুদ্ধরত বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুজিব নগর সরকারের অফিসের ভিডিও চিত্র ক্যামেরায় ধারণ করেন। বৃটেনে ফিরে গিয়ে প্রথমে লন্ডনে ও পরবর্তীতে কমনওয়েলথভুক্ত রাষ্ট্রগুলোতে ধারণকৃত ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করেন। ফলে পাকিস্তানের অপপ্রচারের বিরুদ্ধে এই ভিডিও চিত্র বিশ্বে বাংলাদেশের মুক্তযুদ্ধ সর্ম্পকে বিশ্বাস যোগ্য সৃষ্টি হয়। বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে বিশ্বে জনসমর্থনের পাশাপাশি সাহায্য, সহযোগিতা বৃদ্ধি পায়। অথচ, স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী অতিক্রম করার পরেও রংপুরাঞ্চলের মানুষ বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি দরিদ্র, উন্নয়ন বঞ্চিত ও অবহেলিত, এক কথায় চরম-বৈষমের শিকার।
সারা বংলাদেশে দারিদ্রতার হার ২০.৫%, অথচ রংপুর বিভাগের দরিদ্রতার হার ৪৭.২৩%, ময়মনসিংহ বিভাগে ৩২.৭৭%, রাজশাহী বিভাগে ২৮%, খুলনা বিভাগে ২৭.৪৮%, বরিশাল বিভাগে ২৬.৪৯%, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৮.৪৩%, সিলেট বিভাগে ১৬.২৩%, ঢাকা বিভাগে ১৬%।
অপরদিকে বাংলাদেশে ১০টি দরিদ্র জেলার মধ্যে রংপুর বিভাগের ৫টি জেলা। জেলাগুলো হচ্ছে:
দিনাজপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, রংপুর ও লালমনিরহাট । তন্মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলার দারিদ্রতার হার ৭০ দশমিক ৮ শতাংশ, দিনাজপুর জেলায় ৬৪.৩ শতাংশ, গাইবান্ধা জেলায় ৪৬.৭ শতাংশ, রংপুর জেলায় ৪৩.৮ শতাংশ ও লালমনিরহাট জেলায় ৪২ শতাংশ।
কুড়িগ্রাম জেলার ৯টি উপজেলার দরিদ্র গ্রæপ অতি উচ্চ ভুরঙ্গামারী ৭১.৯%, চর রাজিবপুর৭৯.৮%, চিলমারী ৭৩.৫%, ফুলবাড়ী ৬৯.০%, কুড়িগ্রাম সদর ৭২.৬%, নাগেশ্বরী ৭২.৭%, রাজারহাট ৭০.১%, রৌমারী ৭৬.৪%, উলিপুর ৭০.৮%।
দিনাজপুর জেলার ১৩টি উপজেলার দরিদ্র গ্রæপ অতি উচ্চ বিরামপুর ৫৯.৫%, বীরগঞ্জ ৬৭.২%, বিরল ৬৫.১%, বোচাগঞ্জ ৫৯.২%, চিরিরবন্দর ৬৪.১%, ফুলবাড়ী ৬০.৮%, ঘোড়াঘাট ৬৪.১%, হাকিমপুর ৬৩.৯%, কাহারোল ৬৩.৯, খানসামা ৬৮.২%, দিনাজপুর সদর ৬৪.১%, নবাবগঞ্জ ৬৪.৪%, পার্বতীপুর ৬৩.৮%।
গাইবান্ধা জেলার ৭টি উপজেলার দরিদ্র গ্রæপ অতি উচ্চ ফুলছড়ি ৪৮.০%, গাইবান্ধা সদর ৪৬.৬%, গোবিন্দগঞ্জ ৪১.৫%, পলাশবাড়ী ৪১.৯%, সাদুল্লাপুর ৪২.৫%, সাঘাটা ৪৪.৯%, সুন্দরগঞ্জ ৪৭.৬%।
রংপুর জেলার ৮টি উপজেলার দরিদ্র গ্রæপ উচ্চ বদরগঞ্জ ৩৬.১%, অতি উচ্চ গংগাচড়া ৪৭.০%, অতি উচ্চ কাউনিয়া ৪৯.৪%, উচ্চ রংপুর সদর ৩৭.৫%, অতি উচ্চ মিঠাপুকুর ৪০.১%, উচ্চ পীরগাছা ৩৯.৩%, উচ্চ তারাগঞ্জ ৩৮.১%।
লালমনিরহাট জেলার ৫টি উপজেলার দরিদ্র গ্রæপ(%)উচ্চ আদিতমারী ৩৭.৯%, উচ্চ হাতীবান্ধা ৩৯.০%, উচ্চ কালীগঞ্জ ৩৬.৯%, অতি উচ্চ লালমনিরহাট সদর ৪০.১%, অতি উচ্চ পাটগ্রাম ৪০.২%।
এই বিভাগের আরও খবর