লালমনিরহাট বার্তা
লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনে অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা চালু
বার্তা ডেস্কঃ | ৩০ আগস্ট, ২০২১ ৯:০২ AM
লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনে অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা চালু
সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন বিচারিক সেবা সংক্রান্ত তথ্যাদি যাতায়াত, অর্থ ও সময় ব্যয় ছাড়াই সার্বজনীনভাবে জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যাওয়ার জন্য অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা চালু করেছে। অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা জেলার এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের একটি ডিজিটাল সেবা।
লালমনিরহাট জেলা বাংলাদেশের উত্তর জনপদের একটি প্রান্তিক জেলা। ভৌগোলিক দিক থেকে লালমনিরহাট জেলা পূর্ব থেকে পশ্চিমে প্রায় ১শত ১০কিলোমিটার বিস্তৃত। জেলা সদর থেকে পশ্চিমে দূরবর্তী পাটগ্রাম উপজেলার দূরত্ব ১শত কিলোমিটার ও হাতিবান্ধা উপজেলার দূরত্ব ৬৫কিলোমিটার। আদালতে মামলা পরিচালনা ও মামলার তথ্য অবহিত হওয়ার জন্য যেকোন বিচারপ্রার্থীকে সারাদিন ব্যয় করে সুদীর্ঘ পথ অতিক্রম করে জেলা সদরে আসতে হয়।
বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নিয়ন্ত্রনে বিভিন্ন আদালতে চলমান মামলার পরবর্তী তারিখ, সর্বশেষ আদেশ, আদালতের বিচার কার্যক্রম কোন কারনে বন্ধ থাকবে কি-না, মামলার অন্যান্য তথ্য জানার জন্য বেশির ভাগ সময়েই বিচার প্রার্থীদের সংশ্লিষ্ট আদালতের কর্মচারী আইনজীবিবৃন্দের সহকারী, অথবা কোন দালালের নিকট দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে আসতে হয়। এতে তাদের দূরত্ব অনুসারে গাড়ী ভাড়া, অন্যান্য খরচ এবং তথ্য প্রার্থীর জন্য দালালসহ বিভিন্ন জনকে অর্থ দিয়ে সন্তুষ্ট করতে হয়। তাছাড়া যেদিন তারা মামলার তথ্যের জন্য আদালত বা জেলা শহরে আসেন সেদিন তাদের পারিবারিক কাজ অথবা মজুরি নষ্ট হয়। এতে তাদের বাড়তি খরচের সাথে সাথে আয় কমে যায়।
প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশে জনগনের দোরগোড়ায় সরকারী সেবা পৌছে দেয়ার উদ্দেশ্যে বিচারিক আদালত সমূহে মামলার শুনানীর তারিখ, আদেশ ও অগ্রগতি ইত্যাদি তথ্য বিচারপ্রার্থীদের নিকট অনলাইনে ও মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে অবহিত করার জন্য অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা চালু করা হয়েছে ফলে বিচারপ্রার্থী জনগন ঝামেলা ছাড়াই যাবতীয় তথ্য অবহিত হতে পাচ্ছেন।
এই কার্যক্রমের আওতায় বিচারপ্রার্থী যেকোন ব্রাউজার হতে ওয়েব লিংকে ক্লিক করে( http://onlinecourtlalmonirhat.com/) সহজে অনলাইন কোর্ট, লালমনিরহাট ওয়েবপেজে প্রবেশ করতে পারবেন। এই পেজের উপরের দিকে চারটি আদালতের মধ্যে বিচারপ্রার্থী তার কাক্ষিত আদালতে ক্লিক করে বাদী বিবাদীর নাম, মামলার নাম্বার, উপজেলা, তারিখ প্রভৃতি তথ্য সার্চ অপসনে লিখে সার্চ করলেই তার তথ্যাদি জানতে পারবেন। মামলার সকল তথ্যাদি পিডিএফ ফাইল অটো প্রস্তুত থাকায় বাদী বিবাদীর মোবাইলে এসএমএস চলে যায়।
তাছাড়াও অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনায় বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অতি সহজে মনিটরিং টুরের মাধ্যমে মামলার সংখ্যা নিষ্পত্তিকৃত মামলা, চলমান মামলা, নিষ্পত্তির হার প্রভৃতি তথ্য পর্যবেক্ষন করতে পারেন। এ সফট্ওয়ারের মাধ্যমে মাসিক ও বার্ষিক রিপোর্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রস্তুত হয়ে যায়।
বিচার ব্যবস্থাকে সাধারণ জনমানুষের দোরগোড়ায় পৌছে দেওয়ার জন্য “অনলাইন আদালত ব্যবস্থাপনা” অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব অ্যাপ। এই ব্যবস্থার কার্যক্রমের মাধ্যমে একদিকে যেমন জনভোগান্তি লাঘব হবে, অন্যদিকে বিচার ব্যবস্থার স্বচ্ছতা নিশ্চিত হবে। জেলায় গত বছরে জানুয়ারী থেকে এ পর্যন্ত এই ব্যবস্থাপনা বিচারিক আদালতে ৩ হাজার ৯শত ৭১টি মামলার বিপরীতে ৯ হাজার ২শত বিচারপ্রার্থীকে মোবাইল এসএমএস পাঠানো হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়।
এ ব্যাপারে এই ব্যবস্থাপনা চালুর সময়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও বর্তমানে অতিরিক্ত জেলা (সার্বিক) মুহাম্মদ রাশেদুল হক প্রধান জানান, এই ব্যবস্থাপনা চালুর ফলে বিচারপ্রার্থী জনগন সহজেই তাদের মামলা সংক্রান্ত তথ্যাদি জানতে পারছেন। এতে সময় ও অর্থ সাশ্রয় হচ্ছে। জেলা প্রশাসক আবু জাফর জানান, এই পদ্ধতি চালুর ফলে জনগনের ভোগান্তি কমেছে। ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় বিচার কার্যক্রমে মৌলিক পরিবর্তন এসেছে।
এই বিভাগের আরও খবর