লালমনিরহাট বার্তা
এত জারত এবার বুঝি বাঁচিম বাবা!
স্টাফ রিপোর্টারঃ | ২০ জানু, ২০২২ ১০:১১ AM
এত জারত এবার বুঝি বাঁচিম বাবা!
এত জারত (ঠান্ডা) এবার বুঝি মুই বাঁচিত বাবা। যায় মোক এবার কম্বল খান দিছেন, আল্লাহ তাক ম্যালা দিন বাঁচি থুইবে-এভাবেই কম্বল পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে কথাগুলো বলছিলেন মহিষখোচা ইউনিয়নের সলেডি স্পার-২ এর বাসিন্দা ছালেহা বেওয়া (৭৫)।
তিনি আরো বলেন, বাবা হ্যামারগুলার এক সময় সউগই ছিল কিন্ত মরার তিস্তা নদীর কবলে ১৩ বার ভাঙ্গনে বসতভিটা হারিয়ে জায়গা হয়েছে স্পার এলাকায়। কোনওদিন একখান কম্বল মোর কপালে জোটেনি। এইবার ক্যানবা একখান কম্বল মোক পুলিশ বেটারা দিছে। আল্লাহ ওমাক ভাল করুক।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারী) আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের দক্ষিণবালাপাড়া ফাজিল মাদরাসা মাঠে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার্স কল্যাণ সমিতি ঢাকার আয়োজনে ও জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ৬ শতাধিক শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।
সকাল থেকে কনকনে শীত আর হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করে তিস্তার চরাঞ্চল থেকে কম্বল নিতে এসে শীতার্ত মানুষজন হাজির হয়েছেন মাদরাসা মাঠে।

আদিতমারী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুরুজ্জামানে সঞ্চালনে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) মারুফা জামান,অবসরপ্রাপ্ত সহকারী পুলিশ সুপার ও আজীব সদস্য (বিআরপিওডাব্লিএ) নুর ইসলাম আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম,ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আব্দুল কাদের, ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ, ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান প্রমুখ।
এই বিভাগের আরও খবর