লালমনিরহাট বার্তা
রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ৮ দিনে করোনায় ২৭ জনের মৃত্যু : ভারতীয় সীমান্ত বর্তী জেলা গুলোতে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে
রংপুর অফিস : Jun 9, 2021, 10:09:52 PM সময়ে

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ৮ দিনে করোনায় ২৭ জনের মৃত্যু : ভারতীয় সীমান্ত বর্তী জেলা গুলোতে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে

 রংপুর  বিভাগের ৮ জেলায় গত ৮ দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে গত ৪৮ ঘন্টায় ৬জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৪শ ৭২জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডাঃ আহাদ আলী। 
রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে করোনায় সবচেয়ে বেশী মারা গেছে দিনাজপুর জেলায় ১৫২ জন এবং রংপুরে ১শ ১ জন। গত ৮ দিনে যে ২৭ জন মারা গেছে তাদের মধ্যে দিনাজপুরে ১০ জন, ঠাকুগায়ে ৫ জন, কুড়িগ্রামে ৪জন , লালমনিরহাটে ৫ জন এবং রংপুরে ৪ জন। এ নিয়ে রংপুর বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪শ ১৩জন। 
বিভাগীয় স্বাস্থ্য কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে রংপুর বিভাগে এ পর্যন্ত মোট করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৬শ ৪১জন। এর মধ্যে রংপুর জেলায় ৪০ হাজার ৭শ ১৩জন, পঞ্চগড়ে ৫শ ৬শ ৩ জন, নীলফামারী জেলায় ১২ হাজার ২শ ২১জন, লালমনিরহাটে ৬ হাজার ২শ ৬৬ জন, কুড়িগ্রামে ৭ হাজার ৮শ ২ জন, ঠাকুরগায়ে ৯ হাজার ৭শ ৯০জন, দিনাজপুর জেলায় ৪৪ হাজার ১৩ জন এবং গাইবান্ধায় ৯ হাজার ২শ ৩৩জন। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ হয়েছে ১৯ হাজার ৪শ ৭৩জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশী করোনা পজিটিভ হয়েছে দিনাজপুরে ৬ হাজার ২১ জন, এর পরে রয়েছে রংপুর জেলা সেখানে পজিটিভ হয়েছে ৫ হাজার ১শ ৫জন। এ ছাড়া পঞ্চগড়ে ৮শ ৪৪জন, নীলফামারীতে ১ হাজার ৫শ ৯৩জন, লালমনিরহাটে ১ হাজার ১শ ১৬জন, কুড়িগ্রামে ১ হাজার ২শ ৫৭জন, ঠাকুরগায়ে ১ হাজার ৭শ ৬০ জন, এবং গাইবান্ধায় ১ হাজার ৭শ ৮২জন করোনা পজিটিভ হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে হোম কোয়ারাইনটাইনে আছেন ৯৬১জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৪৬জন। 
এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক ডা, জাকিরুল ইসলাম জানিয়েছেন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিনাজপুর জেলায় সবচেয়ে বেশী সেখানে আক্রান্তের হার ৩৪ ভাগ এবং রংপুরে ২০ ভাগের কাছাকাছি। তবে সীমান্ত বর্তী জেলা হিসেবে দিনাজপুর ছাড়াও কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটে ইদানিং করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে বলে জানান। তিনি আরো জানান ভারত থেকে বৈধ ভাবে আসা বাংলাদেশী নাগরিকরা সাধারনত লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থল বন্দর ও দিনাজপুরের হিলি স্থল বন্দর দিয়ে আসছে। তাদের আসার সাথে সাথে স্বাস্থ্য পরীক্ষা হচ্ছে সেই সাথে তাদের কোয়ারাইনটাইনে রাখা হচ্ছে। ভারত থেকে বাংলাদেশী নাগরিকদের মধ্যে ১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে পজিটিভ পাওয়ার পর তাদের নমুনা ঢাকায় আইসিঢিআরে পাঠানো হয়েছে নমুনায় ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট আছে কিনা তবে এখন পর্যন্ত কোন প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি।  তিনি জানান রংপুর বিভাগের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় ট্রাকে করে বিভিন্ন মালামাল আমদানী করা হয় এসব ট্রাকে ভারতীয় ড্রাইভার ও হেলপারদের জিরো লাইনের ভেতরে আসতে না দেয়া সহ তাদেরও শারিরীক পরীক্ষ্ াকরা হচ্ছে বলে জানান তিনি। করোনার এই দুর্যোগকালিন সময়ে সকলকে মাস্ক পরিধান করা , স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ জানানো সত্বেও অনেকেই মাস্ক পরিধান করছেননা। এ জন্য প্রতিটি জেলায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে জরিমানা করা সহ সচেতনতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। 
রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অদিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক ডাঃ আহাদ আলী জানান, রংপুর মহানগরীতে করোনা রোগীদের জন্য ১শ বেডের একটি স্পেশালাইজড হাসপাতাল নির্মান করা হয়েছে সেখানে পর্যাপ্ত পরিমানে অ´িজেন ও আইসিইউ ও ভেন্টিলেটর আছে। রংপুর ও দিনাজপুরে ১৮টি সিসিইউ বেড রয়েছে। এটা আরো বৃদ্ধি করা ও রংপুর ও দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিসিইউবেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তিনি সকলকে মাস্ক পরিধান করা ও সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মান্য করার আহবান জানিয়েছেন।