লালমনিরহাট বার্তা
রংপুরে মাইক্রোবাস-প্রাইভেট কার চলাচল প্রতিহত করতে মটর শ্রমিকদের অবস্থান
রংপুর অফিস : May 16, 2021, 5:44:09 PM সময়ে

রংপুরে মাইক্রোবাস-প্রাইভেট কার চলাচল প্রতিহত করতে মটর শ্রমিকদের অবস্থান

রংপুরের মর্ডান মোড়ে মটর শ্রমিকদের বাধার মুখে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। করোনার লকডাউনে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার চলাচল প্রতিহত করতে মটর শ্রমিকরা রংপুর নগরীর প্রবেশদ্বার মডার্ন মোড় এলাকায় অবস্থান নিয়েছেন। তারা ঘোষণা দিয়েছেন লকডাউনের মধ্যে আন্তঃজেলা ও ঢাকাগামী বাস চলাচল না করলে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার চলাচল করতে দেওয়া হবে না। পুলিশ জানায়, গতকাল শনিবার সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মডার্ন মোড় এলাকা দিয়ে ঈদ করতে আসা রংপুর বিভাগ সহ বিভিন্ন জেলার মানুষ ঢাকায় ফেরার জন্য মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারে ঢাকায় যাবার পথে অর্ধশতাধিক গাড়ি সেখানে জড়ো হয়ে জন প্রতি তিনগুণ ভাড়া নিয়ে নিচ্ছে এমন খবর জানাজানি হলে শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মটর শ্রমিকরা এক জোট হয়ে মাইক্রেবাস ও প্রাইভেট কার চলাচলে বাধা দেন। তারা যাত্রীদের গাড়ি থেকে জোর করে নামিয়ে দেন। এ নিয়ে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার ড্রাইভার-হেলপারদের সঙ্গে তাদের বাকবিন্ডা ও হাতাহাতি হয়। এ সময় মোটর শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। পুরো মডার্ন মোড় এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে মেট্রোপলিটান তাজহাট থানার ওসি আখতারু জ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স মর্ডান মোড়ে গিয়ে প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। মোটর শ্রমিক নেতা মাহবুব অভিযোগ করেন, ‘সরকার লকডাউন ঘোষণা করে আন্তঃজেলা ও ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে। ফলে আমরা হাজার হাজার শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছি। এমনি অবস্থায় মাইক্রোবাস আর প্রাইভেট কার প্রকাশ্যেই তিনগুণ ভাড়া নিয়ে যাত্রী তুলে রংপুর থেকে ঢাকায় যাতায়াত করছে। অপরদিকে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারের ড্রাইভার-হেলপাররা বলছেন, গাড়ি না চললে তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে চলবেন কীভাবে? গতকাল রোববার সকাল থেকে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারের বিনা বাঁধায় যাতায়ত লক্ষ্য করা গেছে। তবে রংপুর জেলা মটর শ্রমিকের এক নেতা জানান, শ্রমিকরা আবার যেকোন মূহুর্তে অবস্থান নেবে। তাজহাট থানার ওসি আখতারুজ্জামান বলেন, মোটর শ্রমিকদের দাবি যৌক্তিক। লকডাউনের সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী বাস না চললে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারও চলবে না। এসব গাড়ি যাত্রী নিয়ে চলাচল করে, সে কারণে আমরা চলাচল বন্ধ করে দিয়েছি। উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।