লালমনিরহাট বার্তা
পাটগ্রামে নার্গিস হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন
আজিনুর রহমান আজিম, পাটগ্রাম : : Apr 26, 2021, 11:19:36 PM সময়ে

পাটগ্রামে নার্গিস হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা ইউনিয়নে গতবছরের ২ ডিসেম্বর অজ্ঞাত এক নারীর অর্ধনগ্ন মৃতদেহ উদ্ধার করে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। ওইদিন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার, ক্রাইমসিন ইউনিট ও সিআইডি রংপুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। ওইদিনই থানায় ক্লুলেস হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। ঘটনার প্রায় ৫ মাসের মাথায় হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও মূল আসামীসহ চার জনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। এ বিষয়ে সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেল ৩ টায় থানা কার্যালয়ে সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) তাপস সরকার ও থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত সাংবাদিকদের অবহিত করেন। পুলিশ জানায়, হত্যার শিকার নারী হামিদা আক্তার ওরফে নার্গিস সুরমা (২৪) নিঃসন্তান ও স্বামী পরিত্যক্তা। তার বাবার নাম রফিকুল ইসলাম। বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার ভরডোবা গ্রামে। প্রায় তিন বছর থেকে শেরপুর জেলার সদর উপজেলার ভাতশালা গ্রামের ট্রাক চালক জিরাব আলীর (২৮) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ও দৈহিক সম্পর্কও হয়। এরপর নার্গিস জিরাব আলীকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। বিয়ের দাবি তুলে জিরাবের বাড়ি গিয়েও অভিযোগ করে সে। পূর্বের দুই স্ত্রী ও সন্তানাদি থাকায় নার্গিসকে বিয়ে করতে রাজি না হয়ে পথ থেকে সড়াতে নার্গিসকে হত্যার পরিকল্পনা করে জিরাব। ঘটনার দিন (৩০ নভেম্বর/২০ ইং) ঢাকা থেকে বগুড়া হয়ে রংপুর আসার পথে পূর্বপরিকল্পনা মোতাবেক মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নার্গিসকে রংপুর সাতমাথা থেকে ট্রাকে উঠিয়ে নেয় জিরাব। সঙ্গে ভাতিজা হেলপার শাহিনুর ইসলাম শাহিনও (১৫) ছিল। ১ ডিসেম্বর সন্ধায় রাত ১১/১২ টার দিকে বাউরা বাজারের পাশে ট্রাক দাঁড় করিয়ে ট্রাকে থাকা বালিশ দিয়ে নার্গিসকে হত্যার জন্য শ্বাসরোধ করে জিরাব। নিস্তেজ অবস্থায় তাকে (নার্গিসকে) ট্রাক থেকে নিচে ফেলে দেয়া হয়। এ সময় জিরাব তার ভাতিজা শাহিনকে আরও মারতে বলে। শাহিন ট্রাকে থাকা লোহার লিভার পাইপ দিয়ে নার্গিসের মাথায়, পিঠে আঘাত করে। মৃত্যু নিশ্চিত করে ট্রাকে থাকা বালিশ, কাঁথা ঘটনাস্থলে মৃতদেহের নিকট ফেলে ভাতিজা শাহিনকে দিয়ে ট্রাক চালিয়ে বড়খাতা পেট্রোল পাম্পে গিয়ে ট্রাকের ভিতর রাত্রি যাপন করে। পরদিন ট্রাক নিয়ে (২ ডিসেম্বর ২০২০) বাউরা বাজারে এসে সারাদিন দালালের মাধ্যমে খড় সংগ্রহ করে রাত ৯/১০ টার দিকে নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে বাউরা বাজার থেকে ট্রাক নিয়ে চলে যায়। পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত বলেন, ক্লুলেস হত্যা মামলার সূত্র ধরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের প্রযুক্তির সহায়তায় শেরপুর ও নারায়নগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ২০ এপ্রিল/২১ হত্যাকান্ডে জড়িত জিরাব আলী (২৮), তার ভাতিজা শাহিনুর ইসলাম শাহিন (১৫) মূল আসামী ও ট্রাকের দালাল শমসের আলী ও শফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়। মূল আসামী উভয়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।