লালমনিরহাট বার্তা
রংপুরে স্পিকারের নাম ভাঙ্গিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে মেম্বারের সংবাদ সম্মেলন
রংপুর অফিসঃ | ২৭ জুন, ২০২২ ১২:৪৮ PM
রংপুরে স্পিকারের নাম ভাঙ্গিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে মেম্বারের সংবাদ সম্মেলন
রংপুরের পীরগঞ্জের কুমেদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্পিকারের নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে এক ইউপি সদস্য। সোমবার (২৭ জুন) বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাব মিলনায়নে পীরগঞ্জের কুমেদপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বার দেবব্রত অধিকারী দেবু সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ আনেন।
সংবাদ সম্মেলনে ইউপি সদস্য দেবব্রত বলেন, কুমেদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ সভাপতি আমিনুল ইসলাম স্পিকারের সাথে সখ্যতার জেরে কর্মসৃজন কর্মসূচির শ্রমিক নিয়োগে অনিয়ম, বয়স্কভাতা ও বিধবা ভাতার কার্ড করে দেয়ার নামে টাকা উত্তোলন, তালিকায় একই নাম একাধিকবার ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন, স্বচ্ছল ব্যক্তিদের টাকার বিনিময়ে তালিকাভূক্তকরণ জন্ম নিবন্ধনেও সাধারণ মানুষকে চরমভাবে হয়রানী করে আসছেন। এসব বিষয় নিয়ে তিনি মামলা করলেও আদালতের আদেশও মানছেন না চেয়ারম্যান। স্পিকারের নাম ভাঙ্গানোর কারণে উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দিয়েও এসব বিষয়ে কোন সমাধান মিলছে না বলে অভিযোগ করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত ২৮ ফেব্রæয়ারী ইউনিয়নের সচিব রেবেকা সুলতানাকে ( স্মারক নং ০৫.৫৫.৮৫০০.০১১.০৫.০২৭.২২.১৫৮) বদলীর আদেশ দিয়ে তদস্থলে উজ্জল কুমার অধিকারীকে যোগদানের আদেশ দেয়। আদেশের পর রেবেকা সুলতানা উপজেলার ১২ নং মিঠিপুর ইউনিয়নে গত ৬ মার্চ ২০২২ যোগদান করেন। চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম সচিব উজ্জল কুমার অধিকারীকে চাবি ও দাপ্তরিক কার্যক্রম েেথকে বিরত রেখে পূর্বের সচিব এর সিল স্বাক্ষর জাল করে ১৪ ও ১৯ মার্চ অনেক জন্ম নিবন্ধন প্রদান করেন। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে মামলা (সি আর ১৫৭/২০২২) হয়। এদিকে সচিব উজ্জল কুমার অধিকারীকে দীর্ঘদিন থেকে দায়িত্ব হস্তান্তর না করায় অত্র ইউনিয়নের শিশুরা জন্ম নিবন্ধনের না পাওয়ার কারণে স্কুলে ভর্তি, উপবৃত্তি এবং নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় সদস্যদের সিদ্ধান্ত ছাড়া পূর্বের তালিকা থেকে নাম কর্তন করে স্বচ্ছল ব্যক্তিদের নাম লিপিবদ্ধ করেন। অন্যদিকে টিসিবির আওতায় পণ্য বিতরণের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক করোনাকালীন সময় প্রধানমন্ত্রীর অনুদান ২৫ শত টাকা করে যেসব ব্যক্তিদের অনুদান দিয়েছিলেন। ওই সকল ব্যক্তিদেরকে বাধ্যতামূলক অন্তভর্‚ক্ত করার কথা থাকলেও চেয়ারম্যান বাদ দিয়ে তালিকা তৈরী করেন। এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও ইউনিয়নের তদারকি কর্মকর্তাকে দরখাস্ত দিলেও ক্ষমতার দাপটে এখন পর্যন্ত কোন প্রতিকার হয় নি।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, কর্মসৃজনের নামের তালিকায় হেলাল উদ্দিন, পিতা-মৃত নুরুল ইসলাম সাং মাহমুদপুর ভোটার আইডি নং ৮৫১৭৬৫৪৪৪৭৯৬১ একই ব্যক্তি নাম ক্রমিক নং ৩ ও ক্রমিক নং ৩৮এ লিপিবদ্ধ করে সরকারী অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম।
সংবাদ সম্মেলনে মেম্বার দেবব্রত বলেন, আমি নিজে নির্বাচিত ইউপি সদস্য হওয়া সত্বেও আমার নির্বাচিত ওয়ার্ডে ঈদ উপলক্ষে ভিজি এফ চালের ১২০ জনের তালিকার অনুমোদন চাইলে তিনি তা বাদ দেন। এ নিয়ে আমি পীরগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে (অন্য-১৩৫/২২) মামলা করি। আদালতচেয়ারম্যানকে সরকারী বিধি মোতাবেক ইউপি সদস্যের অর্পিত দায়িত্ব পালনে যাতে বাধা প্রদান করতে না পারে সেজন্য গত ২৮/০৪/২০২২ ইং অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন। এর পরেও চেয়ারম্যান সেই আদেশকে অমান্য করে চলছেন।
সংবাদ সম্মেলনে দেবব্রত বলেন, স্পিকারের সাথে সখ্যতা এবং আওয়ামীলীগ নেতা হওয়ার কারণে তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে ইউনিয়নবাসিকে অতিষ্ট করে তুলেছেন। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন তার বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা নিতে সাহস পান না। এতে স্পিকার এবং আওয়ামীলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।
এসব বিষয়ে চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ওই ইউপি সদস্য সব সময় রংপুরে থাকেন। এলাকায় থাকেন না। সচিব হিসেবে তার ভাই যোগদান না করায় অন্য একজনকে দিয়ে আমি কাজ করছি। তিনি যেসব অভিযোগ করেছেন তা সঠিক নয়।
এই বিভাগের আরও খবর