লালমনিরহাট বার্তা
বুড়িমারী কাস্টমস্ সহকারী কমিশনারের দুর্নীতি তদন্তে টিম গঠন, বুড়িমারীতেও হয়রানি করছেন ব্যবসায়ীদেরকে
পাটগ্রাম প্রতিনিধি : | ২৪ মে, ২০২২ ১০:৪৯ AM
বুড়িমারী কাস্টমস্ সহকারী কমিশনারের দুর্নীতি তদন্তে টিম গঠন, বুড়িমারীতেও হয়রানি করছেন ব্যবসায়ীদেরকে
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনে কর্মরত সহকারি কমিশনার (এসি) জে এম আলী আহসানের দুর্নীতি তদন্তে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড একটি টিম গঠন করেছেন। দিনাজপুর এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগীয় দপ্তরে কর্মরত থাকা অবস্থায় ২০২১ সালের ২৬ ডিসেম্বর তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি রাজস্ব আদায়ে অনিয়মের অভিযোগ দুর্নীতি দমন কমিশন, ঢাকায় অভিযোগ করেন ব্যবসায়ীরা। অপরদিকে বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনে যোগদানের পর থেকে এখানকার ব্যবসায়ীরাও তাঁর কারণে নানা ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলে দাবি করেছেন।
জানা গেছে, বিভাগীয় কর্মকর্তা হিসেবে আলী আহসান ও সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা কবির হোসেন দিনাজপুর কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট সার্কেল বিভাগে কর্মরত অবস্থায় দিনাজপুর বাহাদুর বাজারের দোকানদারদের নিকট হতে রাজস্ব আদায়ের নামে অতিরিক্ত টাকা নেন। টাকা না দিলে নানা ধরনের হয়রানি ও কয়েকগুণ রাজস্ব চাপিয়ে দেন। এভাবে ২০-৩০ লাখ টাকা পকটস্থ করেছেন বলে দিনাজপুর বাহাদুর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষে রহিম শেখ নামে এক ব্যবসায়ী দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ করেন। তাঁদের দুর্নীতি তদন্তে সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড একটি তদন্ত টিম গঠন করে দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে বুড়িমারী কাস্টমস্ স্টেশনের একাধিক ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত ১৩ মার্চ রংপুর কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের এক আদেশে জে এম আলী আহসান, সহকারী কমিশনার (এসি) হিসেবে বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনে বদলী হয়ে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে এখানকার ব্যবসায়ীরাও নানা ধরনের হয়রানি শিকার হচ্ছেন।
বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনের এক সি অ্যান্ড এফ এজন্ট নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক (নাম ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের উল্লেখ করলে সমস্যা হতে পারে) বলেন, ‘সহকারী কমিশনার (এসি) ও রাজস্ব কর্মকর্তা (আরও) দুইজন এবং সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা (এআরও) একজনসহ একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন। নানা নিয়ম দেখিয়ে ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। এখানে আমরা এখন বলির পাঠা। রংপুর কাস্টমস্ কমিশনারকে জানিয়েও কোনো কাজ হচ্ছেনা।’
বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনের সহকারী কাস্টমস্ কমিশনার (এসি) জে এম আলী আহসান বলেন, ‘আপনি বুড়িমারী কাস্টমস্ আমার দপ্তরে আসেন, কথা বলবো।’
এ ব্যাপারে আজকের পত্রিকাকে রংপুর কাস্টমস্ এক্সসাইজ ও ভ্যাট কমিশনার সুরেশ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ‘জে এম আলী আহসানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) তদন্ত টিম করেছে। তাঁরা তদন্ত করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে তথ্য জানাবে। বুড়িমারীতে ব্যবসায়ীদেরকে হয়রানির বিষয়টি দেখা হবে।’
এই বিভাগের আরও খবর