লালমনিরহাট বার্তা
তিনবিঘা করিডর পরিদর্শনে আসছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
আজিনুর রহমান আজিম, পাটগ্রাম প্রতিনিধি : | ৫ মে, ২০২২, ১:৫৯ PM
তিনবিঘা করিডর পরিদর্শনে আসছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আগামীকাল শুক্রবার ও শনিবার আলোচিত বাংলাদেশের দহগ্রাম ইউনিয়নে যাতায়াতের একমাত্র সড়ক ভারতীয় তিনবিঘা করিডর পরিদর্শনে আসছেন। এ তথ্য জানিয়েছেন বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও এ সংক্রান্ত ভারতীয় পশ্চিমবঙ্গের একাধিক গণ্যমাধ্যমে খবর বেড়িয়েছে।
জানা গেছে, অমিত শাহ দুই দিনের সরকারি সফরে পশ্চিমবঙ্গে আসছেন। ইতিমধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বিমানযোগে এসেছেন তিনি। এদিন তিনি কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে বিএসএফের বিশেষ হেলিকপ্টারে উঠে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হিঙ্গলগঞ্জে যান। সেখানকার সীমান্তবর্তী নদী এলাকা পরিদর্শন করেন কেন্দ্রীয় এ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় বিএসএফের বোট এ্যাম্বুলেন্স ও ভাসমান ৬ টি আউট পোস্টের উদ্বোধন করেন তিনি। এরপর জলপথে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বনগাঁও মহকুমার হরিদাসপুরে যান, সেখানে বিএসএফের একটি (মিউজিয়াম) জাদুঘরের উদ্বোধন করেন। এরপর বিএসএফের বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে নদিয়া জেলার কল্যাণীতে যান। সেখানে বিএসএফের একটি অনুষ্ঠান উপভোগ করে বিএসএফ জওয়ানদের সাথে মধ্যহৃভোজে অংশ নেন। সেখান থেকে কলকাতায় ফিরে বিকেলে বিমানযোগে কলকাতা থেকে বাগডোগড়া যাবেন। সন্ধ্যায় শিলিগুড়ির রেল মাঠে বিজেপি আয়োজিত জনসভায় ভাষন দেওয়ার পাশাপাশি একাধিক বৈঠকে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। রাতে শিলিগুড়িতে থেকে শুক্রবার সকালে কোচবিহার হয়ে তিনবিঘা করিডর পরির্দশন শেষে সরকারি একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিবেন বলে জানা গেছে। বিকেলে কলকাতা হয়ে ফিরে যাওয়ার সূচী জানা গেছে তাঁর।
দহগ্রাম যাতায়াতের একমাত্র সড়ক ভারতের তিনবিঘা করিডর পরিদর্শন বা সফর ঘিরে পুরো সড়কে বিভিন্ন রংয়ের ছোট পতাকায় সাঁজিয়েছে বিএসএফ। নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়িয়েছে কয়েকগুণ। বিএসএফের ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা সকাল-বিকাল এমনকি রাতেও দেখভাল করছেন। বিএসএফ তাঁদের ডগ ও বম্ব স্কোয়াড দিয়ে নিয়মিত তল্লাশী করছেন। সিসিটিভিতে চলছে মনিটরিং। বাড়ানো হয়েছে বিএসএফের সংখ্যা। করিডরের চারদিকে কড়ানিরাপত্তার চাঁদরে ঢেকে দিয়েছে বিএসএফ। গতকাল বুধ ও বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনবিঘা করিডর ঘুরে দেখেন বিএসএফের উত্তরবঙ্গের আইজি অজয় কুমার সিং, জলপাইগুড়ি সেক্টরের ডিআইজি ব্রিগেডিয়ার বিজয় মেহতা, কোচবিহারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অমিত ভার্মা প্রমুখ।
দহগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, ‘শুনেছি ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্টমন্ত্রী অমিত শাহ শুক্রবার সকালে আসবেন। যদি কথা বলার সুযোগ হয় তাহলে দহগ্রামের মানুষদের দাবি তিনবিঘা করিডর দিয়ে আমাদের পালিত গরু পারাপারে তাঁদের দেশের কর্তৃপক্ষের বিধি নিষেধ শিথিল করার অনুরোধের কথা তুলে ধরবো।’
এ ব্যাপারে বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ, রংপুর ৫১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল এএফএম আজমল হোসেন খান বলেন, ‘আমরা শুনেছি ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয় আসবেন। এখন পর্যন্ত আমাদের সাথে আলোচনার কোনো বিষয় নেই বা বিএসএফ কর্তৃপক্ষ বলেন নি। আমরা স্বাভাবিক পর্যায়ে রয়েছি।’
এই বিভাগের আরও খবর