লালমনিরহাট বার্তা
হায়রে অজ্ঞান পার্টি! ৪০ হাজার টাকা নিলি কিন্তু জীবনটা এমন করে দিলি কেন?
রংপুর অফিসঃ | ১৭ অক্টোবর, ২০২১ ১:২২ PM
হায়রে অজ্ঞান পার্টি! ৪০ হাজার টাকা নিলি কিন্তু জীবনটা এমন করে দিলি কেন?
রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলা সমবায় দপ্তরের কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব রানা অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পরে ৪০ হাজার টাকা খুইয়েছেন। তিনি এখন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে গতকাল শনিবার সন্ধায় নিজ বাসায় পৌছেছেন। মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জোহরা গতকাল শনিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনা আপনাদের মত আমিও শুনেছি। তার পরিবারকে অসুস্থ্যতার তদারকি করার জন্য খবর পাঠিয়েছি।তবে তিনি অসুস্থ্য থাকার কারনে মোবাইল ফোনে যোগায়োগ করা হয়নি। বিষয়টি গতকাল শনিবার রাতে রাষ্ট্রহবার পর জেলায় আলোচনার ঝড় উঠেছে।
বিলম্বে প্রাপ্ত তথ্যে তার দেয়া ফেসবুক ষ্টাটাসে সমবায় দপ্তরের কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব রানা তিনি লিখেন, হায়রে অজ্ঞান পার্টি! ৪০ হাজার টাকা নিলি কিন্তু জীবনটা এমন করে দিলি কেন?আরো জানাগেছে, গত বৃহস্পতিবার সকালে রংপুর থেকে মিঠাপুকুর যাবার পথে রংপুর মর্ডান মোড়ে হামদার্দ কোম্পানির পরিচয়ে অজ্ঞান পার্টির লোক জন তাদেও মাইক্রোবাসে তোলে।এসময় তারা কোষ্ঠকাঠিন্যের কথা বলে তাদের ব্যবহৃত ঔষধ এবং পানি খাইয়ে আমায় অচেতন অবস্থায় শঠিবাড়ী বাসষ্ট্যান্ডে ফেলে চলেযায়। উপজেলা সমবায় দপ্তর, মিঠাপুকুর, রংপুর এর সহকর্মীদের সহযোগিতায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিঠাপুকুর এবং পড়ে এ্যাম্বুল্যান্সের করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।রংপুর বিভাগীয় যুগ্মনিবন্ধক, রংপুর বিভাগ, ডাঃ তাপস বোস বিভাগীয় প্রধান বক্ষব্যাধি, জেলা সমবায় অফিসার রংপুর, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মিঠাপুকুর, রংপুর মহোদয়, ডাঃ সাদিয়া সাত্তার, উপজেলা সমবায় অফিসার, সদর, রংপুর, উপজেলা সমবায় অফিসার, গংগাচড়া, উপজেলা সমবায় অফিসার, কাউনিয়া সহ বিভাগীয়, জেলা এবং বিভিন্ন উপজেলার অসংখ্য সহকর্মী প্রত্যক্ষভাবে খোঁজ খবর রেখেছেন তাছাড়াও পারিবারিক আতœীয় স্বজনদের সহানুভূতিশীল উপস্থিতি ছিল মনে রাখার মতো। এছাড়া বিভিন্নভাবে যারা আমার শারীরিক অবস্থার খবর রাখছেন তাদের কাছে আমি চির কৃতজ্ঞ। আমি এখন রংপুরে আমার বাসায় অবস্থান করছি। আগের তুলনায় অনেকটাই সুস্থ। আপনাদের দোয়ায় এবং সৃষ্টিকর্তার অসীম রহমতে ইনশাআল্লাহ সুস্থ হয়ে যাবো।
মিঠাপুকুর উপজেলা সমবায় দপ্তরের কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব রানা অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পরে ৪০ হাজার টাকা খুইয়েছেন বলে স্বিকার করে মোবাইলফোনে বলেন, অফিসে যাবার পথে নগরীর মর্ডান মোড়ে অজ্ঞান পার্টিও লোক জন আমার সাথে সুন্দর ব্যবহার কওে তাদের মাইক্রোবাসে তুলেনিয়ে এ কান্ড করে। তিনি আরো বলেন, আমি কাউকে চিনিনা, কার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থার জন্য থানায় যাবো। অজ্ঞান পার্টির সকল দায় মাফ করে দিয়েছি।
এব্যাপারে মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান, এব্যাপারে এ পর্যন্ত কোন অভিযোগ বা মামলা থানায় আসেনি। তবে ঘটনাটি তিনি শুনেননি।
এই বিভাগের আরও খবর