লালমনিরহাট বার্তা
রেলপথ মন্ত্রীর স্ত্রীর নির্দেশে টিকেট পরীক্ষক বরখাস্ত ; অত:পর বহাল
বার্তা ডেস্কঃ | ১০ মে, ২০২২ ৭:৩৭ AM
রেলপথ মন্ত্রীর স্ত্রীর নির্দেশে টিকেট পরীক্ষক বরখাস্ত ; অত:পর বহাল
রেলমন্ত্রী এ্যাড. নুরুল ইসলাম সুজন এর নববিবাহিত স্ত্রীর মোবাইল ফোনের নির্দেশে পাকশী রেলওয়ে বিভাগের ডিসিও নাসির উদ্দীন টিকেট পরীক্ষক শফিকুল ইসলামকে বরখাস্ত করেছেন। রেলপথ মন্ত্রীর স্ত্রী শাম্মী আকতার মনির ৩ জন নিকট আত্মীয় বিনা টিকেটে এসি কেবিনে ভ্রমণ করছিলেন। তাদের নিকট টিকেট চাওয়ায় ও জরিমানা করায় টিকেট পরীক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
রেলপথ মন্ত্রীর স্ত্রী বলে কথা। পরে বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে টিটিইর বরখাস্ত বিষয় প্রচারিত ও প্রকাশিত হলে সারাদেশে ব্যাপক আলোচিত হয়। পরে রেলপথ মন্ত্রনালয় বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহার ও টিকেট পরিক্ষককে স্বপদে বহাল রাখেন এবং পাকশীর ডিসিওকে কারন দর্শনের নোটিশ দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে মিডিয়া ও সাংস্কৃতিক কর্মী সুফী মোহাম্মদী লিখেছেন। শুধু মন্ত্রী কেন, অনেক জেলা-উপজেলায় প্রধান নেতার স্ত্রীর খোঁজ নিলে দেখা যাবে এনাদের কেউ কেউ স্বামীর পাওয়ারে এক একজন বিশাল Unauthorized power bank. আর এ সুযোগে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার স্বার্থাম্বেষীরা এজাতীয় ভাবি বা আপাদের তাদের যোগ্যতার তুলনায় অনেক বেশি বিশেষণের তেলে ভেজে নিয়ে খেতাব ও অ্যাওয়ার্ড দিয়ে কাজ বাগিয়ে নেয়। তখন এ ভাবি বা আপারা ধরাকে সরা জ্ঞান করে "মুঁই কী হনু" ভাব নিয়ে Completely unlawful exercise-এ অভ্যস্ত হয়ে ওঠেন। এসময় এনারা বুঝতে চান না যে, তাদের স্বামীর ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয়।
ফলে, বেচারা মন্ত্রী বা নেতাদের অনেকেরই নিজ স্ত্রী, সন্তান, ভাই-ভাতিজা দ্বারা কখনো কখনো তাঁর ক্ষমতা অপব্যবহার (Abuse of power) হওয়ায় তিনি নির্দোষ থেকেও সমাজ বা রাষ্ট্রের সামনে হেয়প্রতিপন্ন হন। মূহুর্তে নষ্ঠ হয়ে যায় তিলে তিলে গড়া তাঁর উজ্জ্বল রাজনৈতিক কেরিয়ার। So, stop abuse of power. জয় বাংলা।
এই বিভাগের আরও খবর