লালমনিরহাট বার্তা
রংপুরে আরপিএমপি’র অভিযানে ৪ মোটরসাইকেল উদ্ধার ৪৭ জন গ্রেফতার
রংপুর অফিস : May 26, 2021, 7:34:02 PM সময়ে

রংপুরে আরপিএমপি’র অভিযানে ৪ মোটরসাইকেল উদ্ধার ৪৭ জন গ্রেফতার

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরপিএমপি) বিশেষ অভিযানে আঠারো চোর ও এক ছিনতাইকারীসহ ৪৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযানে চুরি যাওয়া ৪টি মোটরসাইকেলসহ ৪০ কার্টুন সিগারেট ও সিগারেট বিক্রির ৯০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।নগরীতে হঠাৎ করে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা বেড়ে যাওয়াতে বিভিন্ন এলাকাতে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।গতকাল বুধবার দুপুরে আরপিএমপি’র কোতোয়ালী থানা আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন।
 পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, চুরি ও বিভিন্ন অপকর্ম ইদানিং বেড়ে গেছে নগরীতে। প্রতিদিনই রংপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করছেন পুলিশ সদস্যরা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ ঘণ্টায় অভিযানে চারটি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার হয়েছে। একই সময়ে ১৮ জন চোর, ১ জন ছিনতাইকারী ও নিয়মিত মামলার ১৩ জন আসামীসহ ৪৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
মারুফ হোসেন বলেন, গত ২৩ মে নগরীর পায়রা চত্বর এলাকা থেকে ব্যবসায়ী আরমান আলী খানের মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় পুলিশ পরের দিন অভিযান চালিয়ে তাজহাট থেকে মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য শহিদুল ইসলাম শাহিনকে গ্রেফতার করে চোরাই মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করে। একপর্যায়ে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের চোরাই মোটরসাইকেলের ক্রেতা মিঠাপুকুর উপজেলার হরিপুর এলাকার আনারুল ইসলামের নাম ও ঠিকানা জানায়। পরে আনারুলকে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে আরও ৩টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করেন।
তিনি আরও জানান, নগরীর নবাবগঞ্জ বাজারে গত ১৩ মে ইসমাইল স্টোর নামে একটি পাইকারী বিক্রেতার দোকান থেকে একদল চোর সিগারেট বিক্রির নগদ ১৮ লাখ টাকা ও ১২ লাখ টাকার সিগারেটের কার্টুন চুরি করে নিয়ে যায়। ওই দোকান মালিকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে চোর চক্রের সদস্য ইমরান ও হোসেন নামে দুজনকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া ৪০ কার্টুন সিগারেট ও সিগারেট বিক্রির ৯০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তবে দোকান থেকে ১৮ লাখ টাকা চুরি হয়েছে কিনা তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।
উপ-পুলিশ কমিশনার বলেন,  মঙ্গলবার রাতে নগরীর গুপ্তপাড়ায় আইন কলেজের সামনে দুদু মিয়া নামে এক ছিনতাইকারী রিকসাচালককে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে তার রিকসা ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় রিকসাচালকের চিৎকারে পুলিশের ভ্রাম্যমাণ দল ছিনতাইকারী দুদু মিয়াকে ধাওয়া করে গ্রেফতার করে। এছাড়াও বিভিন্ন অভিযানে নিয়মিত মামলার ১৩ আসামীসহ মোট ৪৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে চোর ও ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ, ওসি তদন্ত রাজীব বসুনিয়া, উপ-পরিদর্শক (এসআই) এরশাদ আলী, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আল-আমিন, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মজনু মিয়া প্রমুখ।