লালমনিরহাট বার্তা
নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন
স্টাফ রিপোর্টারঃ | ১ জুন, ২০২২ ১:১৬ PM
নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন
লালমনিরহাটের আদিতমারীতে গোবরধন হায়দারীয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সচেতন মহলের নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ অস্বীকার করেন সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক আব্দুস সোবহান।

বুধবার (১ জুন) দুপুরে বিদ্যালয়টি মাঠে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সোবহান। এসময় বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও মহিষখোচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক হোসেন চৌধুরী, সদস্য মতিয়ার রহমান,যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মান্নান কামাল, বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে জানাগেছে, গত ৩০ মে কতিপয় সচেতন মহলের ব্যানারে ঔতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান গোবরধন হায়দারীয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সোবহানক জড়িয়ে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ করেছেন। এটি সম্পুন্ন মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন প্রধান শিক্ষক। তিনি লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন,বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ১৬/০৪/২০২২ ইং তারিখে বেসরকারী শিক্ষক কর্মচারী জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০২১ অনুযায়ী একজন আয়া,একজন পরিচ্ছন্ন কর্মী ও একজন নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগের জন্য গত ১৭ এপ্রিল বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর আয়া পদে ১২টি ও পরিচ্ছন্ন কর্মী পদে ৪টি আবেদন জমা পরে। যাচাই বাছাই শেষে বয়সের কারণে আয়া পদের দুটি আবেদন বাতিল করা হয়।

এদিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করতে স্কুল কর্তৃপক্ষ জেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট মহা-পরিচালকের প্রতিনিধি গ্রহণের জন্য আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে আয়া ও পরিচ্ছন্ন কর্মী নিয়োগের জন্য অফিস আদেশ প্রদান করেন। যার স্মারক নং-জশিঅ/লাল/২০২২/আদিত/৫০৩২, তারিখ- ১১/০৫/২০২২ ইং। আদেশের প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটি ৫ সদস্য বিশিষ্ট নিয়োগ বোর্ড গঠন করেন। নিয়োগ বোর্ডের সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ২৩ মে কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার নছর উদ্দিন সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় সব্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্ত প্রার্থীদের নির্বাচিত ঘোষনা করা হয়। চুড়ান্ত প্রার্থীরা গত ২৬ মে অত্র প্রতিষ্ঠানে যোগদান করে অদ্যবধি কর্মরত রয়েছেন। আর অফিস সহায়ক পদে পুনরায় গত ১০ মে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হলে ওই পদের বিপরীতে ১৭টি আবেদন জমা পড়ে। কমিটি যাচাই বাছাই শেষে ১৭টি আবেদনই বৈধ বলে গণ্য করেন। এখনও অফিস সহায়ক পদে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি বলে প্রধান শিক্ষক আব্দুস সোবহান সংবাদ সম্মেলনে জানান।

সংবাদ সম্মেলন প্রধান শিক্ষক আব্দুস সোবহান দাবী করে বলেন, কতিপয় সচেতন মহলের ব্যানারে প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য তার বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ করেছেন। তিনি এসব অভিযোগের সুষ্ঠ তদন্ত করারও জোর দাবী করেন।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সংবাদ সম্মেলনে দাবী করে বলেন, অফিস সহায়ক পদে এখনও পরীক্ষার দিন ধার্য করা হয়নি। অথচ একটি মহল প্রতিষ্ঠানটি প্রধান শিক্ষকসহ ম্যানেজিং কমিটির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তুলেছেন। তিনি এধরনের অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবী করেন।
এই বিভাগের আরও খবর