লালমনিরহাট বার্তা
লালমনিরহাটের পশ্চিম আমবাড়ীকে  করোনা সহিষ্ণু গ্রাম ঘোষণা
স্টাফ রিপোটার : Jun 9, 2021, 8:59:40 PM সময়ে

লালমনিরহাটের পশ্চিম আমবাড়ীকে  করোনা সহিষ্ণু গ্রাম ঘোষণা

বার্তা রিপোর্টার \ দি হাঙ্গার প্রজেক্ট ও সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক- এর সহযোগিতায় গ্রামীণ কল্যাণ সংস্থা ও বিত্তহীন সমাজ উন্নয়ন সংস্থার আয়োজনে ৮ জুন লালমনিরহাট সদর উপজেলার হরাটি ইউনিয়নের পশ্চিম আমবাড়িকে করোনা সহিষ্ণু গ্রাম ঘোষণার উদ্বোধনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। 
প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ কল্যাণ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক গেরিলা লিডার ড. এস এম শফিকুল ইসলাম কানু। বিশেষ অতিথি ছিলেন ৭নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুস সালাম সরকার, এ্যাডভোকেসি ফোরাম সদর উপজেলা সভাপতি মাখন লাল দাস, সমাজসেবী একরামুল হক, ব্রাক-এর সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচী প্রকল্প সমন্বয়ক আরিফা খাতুন, সামাজিক সংগঠন পথ- এর সভাপতি তাহ্ হিয়াতুল হাবীব মৃদুল। সভাপতিত্ব করেন বিত্তহীন সমাজ উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি আব্দুস সোবহান। অনুষ্ঠান সঞ্চালন ও স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সমন্বয়কারী এনামুল হক টিপু, সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন নির্বাহী পরিচালক ফাতেমা খন্দকার ন্যান্সি।
প্রধান অতিথি পশ্চিম আমবাড়ীকে করোনা সহিষ্ণু গ্রাম ঘোষণা দেন। তিনি করোনা ভাইরাস সহিষ্ণু গ্রাম ঘোষণা প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করে বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শহর-গ্রাম সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। (কমিউনিটি ট্রান্স মিশন) করোনা ভাইরাস অত্যন্ত সংক্রামক এ ভাইরাসে দেখা দিয়েছে। কোন কার্যকর সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা পদ্ধতি এখনো পাওয়া যায়নি। ভাইরাসের নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্ট- এর ভ্যাকসিন প্রাপ্যতা এবং কার্যকারিতা নিয়ে অনিশ্চয়তা। অধিকাংশ বিষেজ্ঞের আশঙ্কা যে, করোনা ভাইরাস সহজে যাবে না। দরকার ভাইরাসের সাথে সদ্ব্যবস্থান এ জন্য প্রয়োজন করোনা ভাইরাস সহিষ্ণু গ্রাম। এটি স্বেচ্ছাব্রতি নির্ভর কমিউনিটির নেতৃত্বে পরিচালিত টেকসই উদ্যোগ। সর্বোপরি এসডিজি ইউনিয়ন কৌশল করোনা ভাইরাস সহিষ্ণু গ্রাম সৃষ্টির মূল ভিত্তি। এই কার্যক্রমে জনগণ নির্বাচিত প্রতিনিধি ও তৃণমূলের নাগরিক সমাজ অংশ গ্রহণ করবেন। 
করোনা ভাইরাস সহিষ্ণু গ্রাম গড়ে তোলার প্রক্রিয়া হিসেবে আমাদেরকে করোনার ঝুঁকি মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ‘থ্রি ডাবলু ক্যাম্পেইন’ (মাস্ক পড়া, নিয়মিত হাত ধোঁয়া, পরস্পর থেকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা) বাস্তবায়ন করতে হবে। কোভিড-১৯ পরীক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা পেতে এবং টিকা নিবন্ধন সহায়তা করা হবে। গ্রামের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ও দরিদ্র পরিবার চিহ্নিতকরণ ও তালিকা প্রণয়ন করতে হবে।
কমিউনিটি ফিল্যাণথ্রোপি (সামাজিক লোকহিতৌষশা) এর মাধ্যমে দরিদ্রদ্যের সহায়তা প্রদান করা হবে। উদ্বোধনী সভায় অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ‘সবাই মিলে শপথ করি করোনা ভাইরাস সহিষ্ণু গ্রাম গড়ি’ সম্বলিত লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করা হয়।