লালমনিরহাট বার্তা
উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করায় প্রতিবাদ
বার্তা ডেস্কঃ | ৩১ মার্চ, ২০২২ ২:০৮ PM
উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করায়  প্রতিবাদ
গত ২৮/০৩/২০২২ইং সোমবার আলী ফ্রুটস্ এন্ড কোল্ডস্টোরেজের এর সামনে শ্রমিকদের লেলিয়ে দিয়ে লালমনিরহাট-বুড়িমারী সড়ক অবরোধ করে সাজানো বিক্ষোভ প্রদর্শন সম্পর্কে আমাদের বক্তব্য :আলী ফ্রুটস্ এন্ড কোল্ড স্টোরেজের ছয়তলা বিশিষ্ট ১৪০০ মেট্রিকটন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন ভবন নির্মাণ কাজে দরপত্রের মাধ্যমে শ্রমিক সরবরাহের জন্য গত ০৪/০৬/২০২১ ইং আল-আমিন কন্ট্রাক্টর হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হন। চুক্তি মোতাবেক ৩১/১২/২০২১ ইং তারিখের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন করার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক শ্রমিক সরবারাহে চুক্তিবদ্ধ হন ঠিকাদার আল-আমিন। এজন্য তাকে ১,৪৬,৪৯,৩৩৬/- টাকা দেয়ার চুক্তি নির্ধারিত হয়।
চুক্তি অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঠিকাদার আল-আমিন কর্তৃপক্ষের নিকট কাজ বুঝিয়া দিতে বাধ্য থাকবেন। ব্যর্থ হলে ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য থাকবেন বলে চুক্তিবদ্ধ হন।

চুক্তি মোতাবেক ১৫/১২/২০২১ এর মধ্যে কাজ শেষ করার কথা ছিল ওই ঠিকাদারের। কিন্তু ঠিকাদার নির্ধারিত সময়ে সময়ে কাজ বুঝিয়া দিতে ব্যর্থ হন।

ঠিকাদার আল-আমিনের আবেদন নিবেদনের প্রেক্ষিতে পরপর দু’বার মানবিক কারনে ঠিকাদারকে অতিরিক্ত প্রায় ৬০ দিন সময় বৃদ্ধি ও নির্ধারিত ব্যয়ের চেয়ে অতিরিক্ত প্রায় ৪৭,০০,০০০/- টাকা প্রদান করা হয় । দু’বারের সময় বৃদ্ধি মোতাবেক হত ১৫/০২/২০২২ ইং তারিখের মধ্যে সম্পূর্ণ কাজ শেষ করার অঙ্গীকার করার পরও ঠিকাদার আল-আমিন কাজ সম্পন্ন না করে নান টালবাহানা শুরু করেন। চুক্তিমূল্যের চেয়ে বেশি টাকা নেয়ার পরও ঠিকাদারের রহস্যজনক ভূমিকার কারণে সময়মত কোল্ডস্টোরেজটির নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় আলু উৎপাদনের এ মৌসুমে কোল্ড স্টোরটি চালু করতে না পারায় মারাত্মক আর্থিক ক্ষতির সম্মূখীন হন মালিকপক্ষ। কারণ এ কোল্ড স্টোরটি নির্মাণে ব্যাংক থেকে ঋণ নেয়া হয়েছে। ব্যাংকের সুদ দিতে হচ্ছে মালিকপক্ষকে। এমতাবস্থায় সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে উক্ত ঠিকাদার আল-আমিনকে কাজ করতে নিষেধ করেন কর্তৃপক্ষ এবং তার যদি কোন পাওনা থাকে তা হিসেব করে প্রদানের কথা জানিয়ে দেয়া হয়।
আল-আমিন এ পরিস্থিতিতে কোল্ডস্টোরেজের মালিক পক্ষকে জিম্মি করার অসৎ উদ্দেশ্যে মিথ্যা টাকা পাওনার গল্প সাজিয়ে স্হানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ও শ্রমিক নন এমন কিছু বহিরাগতদের নিয়ে ঠিকাদার আল- আমিন গত ২৮ মার্চ ২০২২ রাস্তা অবরোধ করে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে।
এখানে স্পষ্টভাবে কর্তৃপক্ষের বক্তব্য হলো কোন শ্রমিক স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ নিয়োগ করেনি। এবং শ্রমিকদের কোন পেমেন্ট সরাসরি স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ প্রদান করেওনি। কারণ ম্রশিক সরবরাহের জন্য দরপত্রের মাধ্যমে আল-আমিনকে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয় এবং চুক্তিপত্র মোতাবেক ঠিকাদারকে যাবতীয় অর্থ প্রদান করা হয়। এ ক্ষেত্রে চুক্তির চেয়েও বেশী টাকা উক্ত ঠিকাদারকে প্রদান করা হয়েছে যার বিস্তারিত ডকুমেন্টস কর্তৃপক্ষের কাছে সংরক্ষিত রয়েছে। কাজেই শ্রমিকদের কোন পাওনা বাকী থাকলে সেটা সম্পূর্ণরূপে ঠিকাদার আল-আমিন দায়ি।
আমরা ধারণা করছি যে, এই প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক ও সুনাম ক্ষুন্নু করার অসৎ প্রয়াসে ঠিকাদার আল-আমিন কোন কুচক্রিমহলের সাথে যোগসাজশ করে সময়মতো (চুক্তির শর্ত অনুযায়ী)কাজ শেষ না করে অজানা কোন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এবং এরই অংশ হিসেবে গত ২৮/০৩/২০২২ সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ প্রদর্শন সহ নানা প্রকার ক্ষয়-ক্ষতি করার অপচেষ্টা করেছে।
বর্তমান সরকার যেখানে মেগা প্রকল্পসহ এদেশের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করছেন এবং উদ্যোক্তাদের নানা প্রকার সহযোগিতা করছেন, শিল্প কল-কারখানা স্থাপনের উৎসাহ প্রদান করছেন সেসময় আলী ফ্রুটস্ এন্ড কোল্ড স্টোরেজের বিরুদ্ধে এহেন ষড়যন্ত্র কাদের ইশারা এবং ইঙ্গিতে করা হচ্ছে তা খুঁজে বের করার জন্য সরকারের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থা এবং গণমাধ্যমকর্মীদের নিকট অনুরোধ জানাচ্ছি।

ধন্যবাদ সহ
(মোঃ আব্দুর রশিদ )
জেনারেল ম্যানেজার
আলী ফ্রুটস্ এন্ড কোল্ডস্টোরেজের
কালীগঞ্জ, লালমনিরহাট।
(লাবা: বিজ্ঞাপন -২৫)
এই বিভাগের আরও খবর