লালমনিরহাট বার্তা
জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল দপ্তরে অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে পানি পরীক্ষাগার
হীরেন্দ্র নাথ বর্মন: | ১১ নভেম্বর, ২০২১ ১২:৪৬ PM
জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল দপ্তরে অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে পানি পরীক্ষাগার
জেলার সকল মানুষ যেন নিরাপদ পানি পান করতে পারে তা নিশ্চিত করার জন্য ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে লালমনিরহাট জেলার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল দপ্তরে নির্মাণ করা হয়েছে পানি পরীক্ষাগার। এতে ব্যয় হয়েছে সরকারের ৫৮ লক্ষ ২১ হাজার ৫শত ৩৩ টাকা। রংপুরের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স দৌলা এন্ড কোং এ অবকাঠামোটি নির্মাণ করে।
দ্বি-তল ভবনের পরীক্ষাগারটিতে এখনও বসানো হয় নাই পানি পরীক্ষার জন্য কোন যন্ত্রপাতি। নিয়োগ দেওয়া হয় নাই কোন জনবল।
এব্যাপারে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ নাসিমুল ইসলাম জানান, দেশে নিরাপদ পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় ৬৪ জেলার মধ্যে ইতিপূর্বে ১২ এবং নতুন করে ৫২টি জেলাতে নির্মাণ করা হয়েছে দ্বি-তল পানি পরীক্ষাগার। এসব নতুন ভবনগুলোতে যন্ত্রপাতি স্থাপন এবং জনবল নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। আশা করি অল্প সময়ের মধ্যে যন্ত্রপাতি স্থাপনসহ জনবল নিয়োগ করা হবে।
পরীক্ষাগারটি চালু হলে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ সকল পর্যায়ের জনগণ বিশুদ্ধ পানি পানের নিশ্চয়তা পাবে। সুপেয় নিরাপদ পানি প্রাপ্তি নিশ্চিত হবে।
আমরা যে পানিই পান করি না কেন এর মধ্যে ক্ষতিকর মিনারেল উপদান কি আছে, কি নেই তা নিশ্চিত করা যাবে। বিশেষ করে আমাদের দেশের পানির লেভেলের তারতম্যের কারণে টিউবওয়েলের পানিতে প্রায়ই আর্সেনিক ধরা পড়ে। এমন অনেক জায়গা রয়েছে সেখানে মানুষ বুঝতেই পারছে না যে, তারা শরীরের জন্য ক্ষতিকর উপাদান মিশ্রিত পানি নিয়মিত পান করছে। আমরা চাই দেশের যেকোন মানুষ তার পানযোগ্য পানি পরীক্ষা করে নিশ্চিত হবার পরই পান করুক। পানি পরীক্ষাগারগুলোতে পানির ১৬ প্রকারের বিশেষ পরীক্ষা করা যাবে।
এই বিভাগের আরও খবর