লালমনিরহাট বার্তা
ভারতের চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশনে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের সভা
স্টাফ রিপোর্টার পাটগ্রাম: | ২৪ নভেম্বর, ২০২১ ১১:৪২ AM
ভারতের চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশনে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের সভা
লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরের ওপারে ভারতীয় চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশনে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের এক যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২৪ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১২ টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩ টা পর্যন্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দুই দেশের ব্যবসায়ীরা ছাড়াও উভয় দেশের শুল্ক স্টেশন কাস্টমের কর্মকর্তা, সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ-বিজিবি’র) প্রতিনিধি, পুলিশ ও বন্দর কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারাগণ অংশ নেন।
ভারতের অভ্যন্তরে চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশনের একটি কক্ষে ৩ ঘন্টাব্যাপী সভায় বাংলাদেশের বুড়িমারী স্থলবন্দর ও ভারতের চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশন দিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধকতা দূরিকরণ, পণ্যবাহী গাড়ি ও খালি গাড়ি পারাপারের সময় বৃদ্ধি, বুড়িমারী স্থলবন্দরে গাড়ির জট কমানো ও পণ্য খালাসে দ্রæত ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ ও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন, উভয় দেশের কাস্টমস্, বুড়িমারী স্থলবন্দর অভিবাসন চৌকি সচল করণ ও বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং সীমান্তরক্ষী বাহিনীর আন্তরিক সহযোগীতার ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করেন উভয় দেশের ব্যবসায়ীরা।
সভায় সভাপতিত্ব করেন চ্যাংরাবান্ধা এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দেব কুমার ঘোষ। এসময় ভারতের পক্ষে চ্যাংরাবান্ধা ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মজিদুল হক, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল সামাদ, চ্যাংরাবান্ধা সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ, রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী ইদু সওদাগর, উত্তম সরকার, বিএসএফের চ্যাংরাবান্ধা ক্যাম্প কমান্ডার কুরবান আলী ও চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশন কাস্টমের সুপার এবং বাংলাদেশের পক্ষে বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি- রপ্তানিকারক গ্রæপের সভাপতি ও পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুল। কাস্টমর্স কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম, আবু তাহের মিয়া, অচিন্ত্য কুমার ঝা, বন্দর কর্মকর্তা সালাউদ্দিন, শাহীন মাহমুদ, ব্যবসায়ী হুমায়ুন সওদাগর, জাহিদুর রহমান মুক্তা, নুরুজ্জামান জামান, রেজাউল ইসলাম, সাইদুর রহমান, তারেক হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
আমদানি- রপ্তানিকারক গ্রæপের সভাপতি রুহুল আমীন বাবুল বলেন, ‘বুড়িমারী স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশন দিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে ভারতীয় চ্যাংরাবান্ধা শুল্ক স্টেশন ও উভয় দেশের ব্যবসায়ী, কাস্টমস্ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তাগণের সমন্বয়ে যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উভয় দেশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সহায়তায় দুই দেশের শুল্ক স্টেশনের সমস্যা সমাধান করে বাণিজ্য বৃদ্ধিতে কাজ করতে সবাই ঐক্যমত হয়েছেন।’
এই বিভাগের আরও খবর