রংপুরে র‌্যাব সদস্যের আত্মহত্যা
রংপুর অফিস: রংপুর মহানগরীতে র‌্যাব-১৩ সদস্য জাকির হোসেন রানা (৩২)ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। আজ (২০ জুন, ২০২০) শনিবার সকাল ৬ টার দিকে নগড়ীর কলেজ রোড, পুরাতন ট্রাক স্ট্যান্ড, হাবিব নগরের  হাফিজুর রহমানের বাসায় (ভাড়া বাসা)এ ঘটনা ঘটে। তিনি নগড়ীর শাপলা র‌্যাব-১৩ কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন।
পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জাকির হোসেন রানার (৩২) পিতা নাম- মোঃ রফিকুল আলম, গ্রাম নাম- মূলগ্রাম, পোস্ট- কালাই, থানা- কালাই, উপজেলা- কালাই, জেলা- জয়পুরহাট সাথে তার স্ত্রী আফরোজা আক্তার লিনা (২৭) বিয়ে হয়েছে প্রায় ১০ বছর। তাদের দুজনের গ্রামের বাড়ি প্রায় একই জায়গায়। তাদের দশ বছর সংসার জীবনে কোন সন্তানাদি নাই। এই সন্তান না হওয়ার বিষয়টিকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন থেকে তাদের মাঝে ঝগড়া বিবাদ হয়ে আসছে। ইদানিং তাদের ঝগড়া দিন দিন বেড়েই যায়। প্রায় তাদের দুজনের মধ্যে ঝগড়া হতো মারামারি হত। কিন্তু গতকালকে ঝগড়া করে তার স্ত্রী  কে বাসা থেকে বের করে দেয়। তার স্ত্রী জাকির সাহেবের  মামাকে ফোন দিলে তার মামা এসে বাসা থেকে  তাকে তার মামার বাসায় নিয়ে যায়। সারারাত তার স্ত্রীকে তিনি এসএমএস আর কল দেন। আজ সকালে ভোরের দিকে তার সোয়ার রুমে ফ্যানের লকে রশিতে করে ঝুলে আত্মহত্যা করেন। আত্মহত্যা করার আগে তিনি একটা চিরকুট লিখে যান।
তার প্রতিবেশীর আর এক র‌্যাব সদস্য হাসান সাংবাদিকদের বলেন, জাকির সেনাবাহিনী থেকে গত দেড় বছর আগে র‌্যাবে আসেন। রংপুরে র‌্যাব১৩ অফিসেই আমাদের পরিচয়। তারপর আমরা এক বিল্ডিংগের দুই ফ্ল্যাটে দুজন পরিবার নিয়ে থাকি। হঠাৎ আজকে সকালের  জাকির এর স্ত্রী  আমাকে ফোন করে বলে ভাই একটু দেখেনতো ও বিভিন্ন ধরনের উল্টাপাল্টা এসএমএস দিচ্ছে। কোন কিছু করল কিনা। তার কথামতো আমি গেটে নক করি। সে গেট খুলে না পরে আমি বাড়ির মালিক মোঃ হাফিজুর রহমান কে ডেকে নিয়ে এসে দুজনেই লক ভেঙ্গে ফেলে ভেতরে ঢুকে দেখি সে রশিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। পরে আমি আমাদের অফিসে ফোন দেই আর জাকির আত্মহত্যা করেছে বলে জানাই।
এ বিষয়ে তথ্য জানার জন্য জাকির সাহেবের শশুর কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বেশ কিছুদিন থেকে তাদের দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়েছে। আমরা অনেক বার ঝগড়া   সমাধানও করে দিয়েছি। কিন্তু গত কালকে ঝগড়া হয়েছে শুনেছি। কথা বলেছি যে সকালে আসবো এসে মিটমাট করে দিব। সকালে ফোন পাই তিনি গুরুতর অসুস্থ আসতে হবে। তাই তাড়াতাড়ি করে এসে দেখে তিনি আত্মহত্যা করে মারা গেছে।
এদিকে র‌্যাব ১৩ সদস্যেও আত্মহত্যার খবর শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন রংপুর র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস।
এ তথ্য নিশ্চিত করার জন্য রংপুর মেট্রোপলিটন  কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এব্যাপাওে থানায় ইউ,ডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের পারিবারিক কোন্দলের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজে পোস্টমডামের জন্য মর্গে  পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দ্রুত সকল তথ্য প্রমাণ পেয়ে যাবো।
এ ব্যাপারে র‌্যাব-১৩ রংপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) ছিদ্দিক আহাম্মেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি আমরা পরে আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবো।’
বিভাগীয় বার্তা- এর অন্যান্য খবর