পাটগ্রামে ভাওয়াইয়া গানের প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত
স্টাফ রিপোর্টার: উত্তরাঞ্চলের গৌরবময় ভাওয়াইয়া গান হারিয়ে যাওয়ার পথে। ভাওয়াইয়া গানের ঐতিহ্যকে ফেরাতে এই প্রথম লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় ভাওয়াইয়া গানের প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়। রংপুরের গীতালের আখড়া, পাটগ্রাম উপজেলার ধরলা সংগীত নিকেতন ও অম্পুরিয়া সংগঠন ভাওয়াইয়া প্রতিযোগীতার যৌথ আয়োজক। প্রতিযোগীতার উদ্বোধন করেন- পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমীন বাবুল। এ সময় পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মশিউর রহমান, পৌর মেয়র মো. শমসের আলী উপস্থিত ছিলেন। বুধবার (১১ মার্চ) থেকে শুক্রবার পর্যন্ত তিনদিন ব্যাপী ভাওয়াইয়া গানের প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগীতায় উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে প্রায় শতাধিক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগীতায় দ্বিতীয় রাউন্ডে ৬৫ জন ও তৃতীয় পর্যায়ের ফলাফলে ১৬ জন নির্বাচিত হয়। তৃতীয় পর্যায়ে নির্বাচিতদের মধ্যে চুরান্ত প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হবে। ওইদিন ভালো কৃতিত্ব অর্জনকারীদের নগদ অর্থ ও ক্রেস্ট প্রদান ছাড়াও বাংলাদেশ বেতারে ভাওয়াইয়া গান পরিবেশনের সুযোগ পাবে। ভাওয়াইয়া গানের প্রতিযোগীতায় বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন- বাংলাদেশ বেতারের গীতিকার, সুরকার ও দোতরা সাধক সত্যেনদ্রনাথ রায়, বাংলাদেশ বেতারের গীতিকার, সুরকার ও ভাওয়াইয়া শিল্পি কল্যান চন্দ্র শীল এবং  বাংলাদেশ বেতারের ভাওয়াইয়া শিল্পি রামপদ রায়।
আয়োজক মো. রেজাউল কবির রুজেন বলেন, কুমিল্লা, নোয়াখালী, সিলেটসহ অন্যান্য এলাকার লোকজন তাঁদের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। অথচ আমরা রংপুর অঞ্চলের লোকজন আমাদের ঐতিহ্যবাহী আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলতে হীনমন্যতায় ভুগি। ভাওয়াইয়া আমাদের গৌরবময় গান। আমাদের ভাষা, সংস্কৃতি ঐতিহ্য ফেরাতে ভাওয়াইয়া গানের প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়।
বিনোদন বার্তা- এর অন্যান্য খবর