কুড়িগ্রামে মুক্তিপনের দাবীতে যুবক অপহরণ, তিন নারী সহ গ্রেফতার ৬
অনিল চন্দ্র রায়,কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে মুক্তিপণের উদ্দেশ্যে এক যুবককে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অপহৃতের মামা ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশের সহায়তা চাইলে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার এবং তিন নারী সহ ৬ অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে। কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. মাহফুজার রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
অপহৃত যুবকের নাম হোসেন আলী। সে নাগেশ্বরী উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়নের পাখি উড়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের পুত্র বলে জানা গেছে।
পুলিশ জানায়, অপহৃত যুবক হোসেন আলীর সাথে আসামী মুন্নি পারভীন পুর্ব পরিচিত হওয়ায় মুন্নি পারভীন হোসেন আলীকে দেখা করার জন্য রবিবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ৯টায় জেলা স্টেডিয়ামের সামনে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেকে নেয়। এসময় তার সঙ্গী অন্যান্যরা জোর পুর্বক হোসেন আলীকে মোটর সাইকেলে তুলে সদর উপজেলার টাপু ভেলাকোপা এলাকায় নিয়ে যায়। পরবর্তীতে অপহরণকারীরা হোসেন আলীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে এবং মামা বেলাল হোসেনকে ফোন করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। বেলাল হোসেন তার ভাগিনা হোসেন আলীকে উদ্ধারে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে পুলিশের সহায়তা চায়। বিষয়টি কুড়িগ্রাম সদর থানা পুলিশ অবহিত হয়ে রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় টাপু ভেলাকোপা এলাকা থেকে অপহৃত হোসেন আলীকে উদ্ধার করে এবং এ ঘটনায় জড়িত তিন নারী সহ ছয় অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে। অপহরণকারীদের বাড়ি কুড়িগ্রাম সদরের তাঁতীপাড়া ও যতিনেরহাট এলাকায় বলে জানিয়েছে পুলিশ।
উদ্ধারকৃত যুবক হোসেন আলী বর্তমানে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিসাধীন রয়েছে। হাসপাতাল সূত্র জানায়, তার হাতে ও পায়ে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে।
কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহফুজার রহমান জানান, অপহরণের ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ৩ জন সহ ১০ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা হয়েছে।

 
এক নজরে- এর অন্যান্য খবর