বাজারে রোবট কুকুর 'স্পট': কী করতে পারে
বার্তা মনিটর: যুক্তরাষ্ট্রে রোবট নির্মাণকারী একটি কোম্পানির তৈরি জনপ্রিয় একটি 'কৃত্রিম কুকুর' ব্যবহারের জন্যে ভাড়া দেওয়া শুরু হয়েছে।
এর আগে এই কুকুর বানানোর খবর সামাজিক মাধ্যম ও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছিল। ইউটিউবেও তার একটি ভিডিও দেখেছে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ।
কৃত্রিম এই কুকুরটির নাম: স্পট।
বোস্টন ডাইনামিক্স কোম্পানি বলছে, কুকুরের মতো দেখতে চার-পায়ের এই রোবটটিকে এখন একটি গাড়ির চাইতেও কম মূল্যে লিজ বা ভাড়া নেওয়া যাবে।
কোম্পানিটি বলছে, নির্মাণ কাজ, তেল ও গ্যাস ক্ষেত্রে এবং জননিরাপত্তা সংক্রান্ত কাজে এই রোবটটিকে ব্যবহার করা সম্ভব।
একজন বিশেষজ্ঞ বলছেন, মূল্য বেশি হওয়ারে কারণে অনেকেই হয়তো এটি ব্যবহার করতে আগ্রহী হবে না।
তবে কোম্পানিটি বলছে, কৃত্রিম এই কুকুরটির দাম কতো হবে সেটা নির্ভর করছে এর চাহিদার উপর।
যুক্তরাজ্যে শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের শিক্ষক ও রোবটিক্স বিশেষজ্ঞ নোয়েল শার্কি বলছেন, চতুষ্পদ রোবটের একটি দারুণ উদাহরণ হতে পারে এই স্পট, বিশেষ করে এর সাথে হাত যুক্ত করার পর। এখন এটিকে আরো একটু বেশি ব্যবহারযোগ্য বলেই মনে হচ্ছে। কিন্তু দাম অনুযায়ী এটাকে কি আর ততোটা ব্যবহারযোগ্য বলে মনে হবে?
তবে এই রোবটটিকে যদি নির্মাণ কাজে ব্যবহার করা যায় তাহলে হয়তো এটি ব্যয়সাপেক্ষ হবে। তিনি বলেন, এই রোবটটি এমন জায়গায় পৌঁছাতে পারে যেখানে মানুষের পক্ষে যাওয়া কঠিন। নির্মাণ শ্রমিকদের পাশাপাশি এটিও ইটের মতো নানা নির্মাণ-সামগ্রী ও যন্ত্রপাতি বহন করতে পারে।
তবে তিনি এও বলেছেন, বোস্টন ডায়নামিক্সের জন্যে এটি একটি বড় পরীক্ষা। এখন সাধারণ ভোক্তাদের জন্যে এটিকে আরো সস্তায় তৈরি করা যায় কীনা সেটা নিয়ে হয়তো প্রতিযোগিতা তৈরি হতে পারে।
এখন কেউ যদি স্পটকে ব্যবহার করতে আগ্রহী হয় তাহলে তাকে বোস্টন ডায়নামিক্সের ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে।
কোম্পানিটি বলছে, পরীক্ষামূলক-ভাবে তারা এখনও পর্যন্ত ১০০টি স্পট তৈরি করেছে। এখন তারা এটিকে গণহারে উৎপাদনের পরিকল্পনা করছে।
বোস্টন ডায়নামিক্সের প্রধান নির্বাহী মার্ক রাইবার্ট বলছেন, আমাদের জন্যে এটি একটি যুগান্তকারী ঘটনা।
এর আগে এই কোম্পানি একটি অনুষ্ঠানে দেখিয়েছিল সেটি কিভাবে একটি পার্সেল এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নিয়ে যেতে পারে। কিন্তু সেটি ঠিক পরিকল্পনা অনুসারেই কাজ করেনি।
কিন্তু পরে স্পটের যে ভিডিও ছাড়া হয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে স্পট হেঁটে যাচ্ছে, সিঁড়ি বেয়ে উপরের দিকে উঠছে, এবং দরজা খুলে ঢুকছে ঘরের ভেতরে।
এটি আরো যা করতে সক্ষম:
বহন করতে পারে ১৪কেজি ওজন
পড়ে গেলে আবার উঠে দাঁড়াতে পারে
এটি কাজ করতে পারে -২০ থেকে ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায়
তবে অনেকেই বলছেন, স্টপকে যদি নির্মাণ খাতে কাজে লাগানো হয় তাহলে তাকে এর চেয়েও বেশি ওজন বহন করার ব্যাপারে সক্ষম হতে হবে।
এই স্পট তৈরির ব্যাপারে কোম্পানির আসল গবেষণাটির পেছনে অর্থের যোগান দিয়েছিল সামরিক বাহিনী।
প্রথম দিকের ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল যুদ্ধক্ষেত্রেও কিভাবে রোবট কাজ করতে পারে। কিন্তু পরে বোস্টন ডায়নামিক্স এই ধারণা থেকে সরে এসেছে। (সূত্র: বিবিসি)
প্রযুক্তি বার্তা- এর অন্যান্য খবর