সবুজ চায়ের উপকারিতা
উম্মে সালমা তামান্না: বর্তমান সময়ে গ্রিন টি খুবই জনপ্রিয়। পুষ্টি বিশেষজ্ঞরাও এখন গ্রিন টি বা সবুজ চা খেতে পরামর্শ দিয়ে থাকেন। গ্রিন টি শরীরের জন্য অনেক উপকারী। এতে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ফ্ল্যাভনয়েড, পলিফেনল থাকে এবং ক্যাফেইনের পরিমাণ ব্ল্যাক টির চেয়ে কম থাকে।
গ্রিন টিতে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং পলিফেনলস রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে ব্রেস্ট ক্যানসার, ব্লাডার ক্যানসার, স্কিন ক্যানসার, কোলরেক্টাল ক্যানসার, ওভারিয়ান ক্যানসার, প্রস্টেট ক্যানসার, ইসোফেগাল ক্যানসার এবং ফুসফুস ক্যানসার প্রতিরোধ করে। এছাড়াও এতে বিদ্যমান ক্যাটেকাইন ক্রি রেডিকেলস তৈরি হতে দেয় না, সেল ড্যামেজ প্রতিরোধ করে।
আলঝেইমার ও পারকিনসন ডিজিজের ঝুঁকি কমায়। ক্যাফেইন কম থাকলেও এতে বিদ্যমান আযমাইনো অ্যাসিড এল-থিয়ানিন উদ্বিগ্নতা কমাতে এবং মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। গ্রিন টি মেটাবলিজম বুষ্ট করতে সাহায্য করে। যার ফলে সহজেই ফ্যাট বার্ন হয় এবং ওজন কমে।
নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে হূদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে। এল ডি এল কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এবং তারুণ্য ধরে রাখতে গ্রিন টির জুড়ি নেই।
গ্রিন টি খাওয়ার সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হচ্ছে মধ্যসকাল ও সন্ধ্যায়। তবে যাদের ঘুমের সমস্যা আছে তাদের সন্ধ্যায় চা না খাওয়াই উত্তম। দিনে তিন কাপের বেশি গ্রিন টি খাওয়া যাবে না। এতে শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়।
স্বাস্থ্য বার্তা- এর অন্যান্য খবর