কালীগঞ্জে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ॥ সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর আশ্বাসে প্রত্যাহার
স্টাফ রিপোর্টার: লালমনিরহাটে কালীগঞ্জে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী । এসময় লালমনিরহাট -বুড়িমারী মহাসড়ক অবরোধও করে রাখেন তারা। ফলে লালমনিরহাট -বুড়িমারী মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।    
আজ ২৭ অক্টোবর সকালে কালীগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড ও  সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপির বাসার সামনে চলে এ বিক্ষোভ  কর্মসূচি।  পরে ঘটনাস্থলে  সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি উপস্থিত হয়ে ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষোভকারীরা।
এলাকাবাসী জানান, উপজেলার কাশিরাম গ্রামের মরহুম বজলে রহমান মোস্তাজির মাস্টারের মেয়ে স্থানীয় উত্তর বাংলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক এস. তাবাসুম রায়হান মুসতাযীর তামান্না সামান্য বিষয় নিয়ে একের পর এক মামলা করায় এলাকাবাসী হয়রানির শিকার হয়।
এদিকে তামান্নার দায়ের করা একটি মামলায় ওই গ্রামের দিনমজুর খলিল মিয়া আদালতে যাওয়ার পথে অটোরিকশার ধাক্কায় গুরুতর আহত হন। পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুইদিন চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার (২৬ অক্টোবর) মারা যান তিনি। এতে ফুঁসে উঠেছে পুরো এলাকাবাসী।
প্রভাষক তামান্নার গ্রেফতার, কালীগঞ্জ থানার ওসি সাজ্জাদের প্রত্যাহারসহ তার দায়ের করা সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মৃত খলিলের মরদেহ নিয়ে ২ ঘন্টাব্যাপী চলে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন।  
ঘটনাস্থলে পুলিশ নিয়ে এসে অবরোধ তুলে নিতে দুই ঘণ্টা চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন কালীগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর আলম। এসময় মহাসড়কের উভয়প্রান্তে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে। এতে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা। পরে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপির আশ্বাসে এ কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেয় এলাকাবাসী।     
কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আরজু সাজ্জাদ হোসেন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, একটি মহল  তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছেন।  
জাতীয় বার্তা- এর অন্যান্য খবর