আদিতমারীতে সমবায় সমিতির নামে ৩০ লাখ টাকা আত্মসাতের পায়তারার অভিযোগ
স্টাফ রিপোর্টার, আদিতমারী: লালমনিরহাটের আদিতমারীতে সমবায় সমিতির নিবন্ধন নিয়ে গ্রাহকদের সাথে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে প্রজাপতি ব্যবসায়ীক সমবায় সমিতির বিরুদ্ধে। এ সমবায় সমিতি আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা বাজারে অবস্থিত। যার রেজি নং-৫৮, তারিখ ১২/০৩/২০১২ ইং।
এঘটনায় ভুক্তভোগী ৮২ জন সদস্য তাদের জমাকৃত সঞ্চয়ের প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের পায়তারা অভিযোগ এনেছেন ওই সমিতির বিরুদ্ধে । তারা সুষ্ঠ বিচারের দাবীতে আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বরারবে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, সমবায় সমিতির নিবন্ধন নিয়ে উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের মহিষখোচা বাজারে প্রজাপতি ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি নামে একটি প্রতিষ্ঠান খুলেন স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি। তারা বিভিন্ন আকর্ষণীয় প্রলোভন দিয়ে সদস্য ভর্তি করান। এসময় স্থানীয়রা তাদের প্রলোভনে পা রেখে নিঃস্ব হওয়ার পথে। বিশেষ করে এ সমিতির অধিকাংশ সদস্য হলেন তিস্তা নদীর ভাঙ্গনের স্বীকার পরিবার।
এদিকে অভিযোগে আরো জানা যায়, সমিতির সদস্যদের ৬ বছর মেয়াদি বিভিন্ন প্রকল্পে দৈনিক ১০ টাকা হারে মেয়াদ উত্তীর্ণকালে আসল ২১ হাজার ৯শ আর লভ্যাংশ দাঁড়াবে ৮ হাজার ৭শ ৬০ টাকা এবং বোনাস ৬শ সহ ৩১ হাজার ২শ ৬০ টাকা দাঁড়াবে। এছাড়া মাসিক একশ টাকা হারে মেয়াদ উত্তীর্ণকালে ৭হাজার ২ টাকা আসলের পাশাপাশি সর্বমোট ১০ হাজার ২শ ৮০ টাকা পাবেন গ্রাহকরা।
কিন্তু প্রজাপতি ব্যবসায়ীক সমিতির সদস্যদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও সমিতির নেতৃবৃন্দ আজ না কাল বলে টাকা দিতে টালবহনা শুরু করেন। এতে সমিতির নেতৃবৃন্দের কাছে অসহায় হয়ে পরেন সাধারণ গ্রাহকরা।
এদিকে টাকা ফেরতের দাবীতে সোমবার (২৬ অক্টোবর)  সাধারন গ্রাহকরা ওই সমিতি অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে টাকা ফেরতের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন তারা।
প্রজাপতি ব্যবসায়ীক সমবায় সমিতির সদস্য ও অভিযোগকারী মাহাবুর রহমান জানান, ওই সমিতিতে তিনি ১ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা সঞ্চয় করেছেন। তার মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও টাকা ফেরত দিচ্ছেন না সমিতির সভাপতি জাহেদুল ইসলাম খাঁনসহ আরো ৩ জন। এরা হলেনঃ জিয়াউর রহমান,আব্দুল হাই ও আব্দুস সালাম।
 এ অভিযোগ শুধু মাহাবুর রহমানের নয়,এরকম অভিযোগ আরো ৮২ জন সদস্যের। সব মিলে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের পায়তারার অভিযোগ উঠেছে ওই সমিতির বিরুদ্ধে।
এদিকে প্রজাপতি ব্যবসায়ীক সমিতির বিরুদ্ধে উপজেলা সমবায় কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দিলেও বিষয়টি আমলে নেয়নি সমবায় কর্মকর্তা ফজলে এলাহী,এমনটি দাবী করছেন ভুক্তভোগিরা।
এদিকে মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর)  দুপুরে শতাধিক সদস্য আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন তাদের কাছে ঘটনার বর্ণনা শুনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পরামর্শ প্রদান করেন। এছাড়াও তিনি ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
প্রজাপতি ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি জাহেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,পর্যায়ক্রমে এসব সদস্যের টাকা ফেরত প্রদান করা হবে। তিনি আরো বলেন, সমিমির টাকা মাঠে পড়ে থাকায় একটু সমস্যা দেখা দিয়েছে।
আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার( ইউএনও) মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন বলেন, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তাকে তদন্ত করে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন এ কর্মকর্তা।
এক নজরে- এর অন্যান্য খবর